প্রেমের জন্য ধর্মত্যাগ অতঃপর…

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০১৮ | আপডেট: ৪:৩৫:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০১৮

টিবিটি সারাবিশ্বঃপ্রেমের জন্য ধর্ম পরিবর্তন করেছিলেন ভারতের এক যুবক। কিন্তু মুসলিম থেকে হিন্দু ধর্মগ্রহণ করা স্বামীকে ছেড়ে শেষমেষ বাবা-মার কাছে ফিরে গেলো মেয়ে। মামলা মোকদ্দমা আর সর্বোচ্চ বিচারালয়ের দরজা পেরিয়েও সহধর্মিণীকে কাছে রাখতে পারলেন না ওই স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের ছত্তিশগড়ে। শেষমেশ তার জন্য থাকল কেবল আদালতের রায়ের এক টুকরো কাগজ।

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে জানায়, চলতি বছরের ২৩ ফেব্রুয়ারি আরিয়ান আরিয়াকে প্রেম করে বিয়ে করেন অঞ্জলি জেইন। তারা প্রায় তিন বছর ছিলেন সম্পর্কে। মুসলিম থেকে হিন্দু হওয়া আরিয়ানের পারিবারিক নাম মোহাম্মদ ইব্রাহিম সিদ্দিকী। বিয়ের বিষয়ে পরে অভিভাবককে জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে বাসায় ফিরে যায় অঞ্জলি। কিন্তু ততক্ষণে লংকাকান্ড বাসায়।

বাসা থেকে বেরিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত স্বামীর কাছে যেতে পারেননি অঞ্জলি। এর আগেই পুলিশের কাছে ধরা পড়েন তিনি। স্বামীর কাছে যেতে চাইলেও তাকে যেতে হয় অভিভাবকের জিম্মায়।

এরপরই আদালতের দ্বারস্থ হন স্বামী আরিয়ান ওরফে ইব্রাহিম। ছত্তিশগড় উচ্চ আদালতে রিট করেন তিনি। আদালত অঞ্জলিকে হয় বাবা-মার বাড়িতে অথবা হোস্টেলে থাকার আদেশ দেন। তবুও স্বামীর কাছে স্ত্রীকে ফিরিয়ে দিতে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি আদালত।

এখানেই থেমে থাকেননি আরিয়ান। প্রাদেশিক উচ্চ আদালতের রায়ে সংক্ষুব্ধ হয়ে কড়া নাড়েন দেশের সর্বোচ্চ আদালতে। উচ্চ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। শুনানিতে ছিলেন দেশের প্রধান বিচারপতি স্বয়ং। তবে সেখানেও হেরে যেতে হয় তাকে। এবারের দায় স্ত্রী অঞ্জলির।

ভারতের প্রধান বিচারপতি দিপক মিশ্রা এবং বিচারপতি খানউইলকার ও বিচারপতি চন্দ্রচুড়ের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে উপস্থিত করা হয় অঞ্জলি জেইনকে। সেখানে ভারী মজলিসে বাবা-মার বাড়িতেই ফিরে যেতে ইচ্ছা পোষণ করেন তিনি। আর তিনি সাবালিকা (২৩ বছর) হওয়ায় আদালত অঞ্জলির মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে তাকে অভিভাবকের জিম্মায় সোপর্দ করেন।

আর প্রেম ও প্রেমিকার জন্য ধর্ম ত্যাগ করা যুবকের জন্য পড়ে থাকলো আদালতের রায়ের এক টুকরো কাগজ।