প্লাস্টিকের ব্যাগ হাতে স্টেশনে ঢুকলেই গুনতে হবে জরিমানা!

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৫১:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯

আগে যা করেছেন তা ভুলে সাবধান হয়ে যান! যাত্রীদের এভাবেই সতর্ক করা শুরু করল ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ। ৫০ মাইক্রনের নিচে প্লাস্টিকের ব্যাগ বা অন্য সামগ্রী নিয়ে স্টেশনে ঢুকলে বা ট্রেনে চড়লে গুনাগার দিতে হবে সেই যাত্রীকে। আগামী ২ অক্টোবর থেকে রেল প্লাস্টিকের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করছে।

এজন্য জলের বোতল পুনঃচক্রায়ণও বন্ধ করে হচ্ছে। ট্রেনে জলের বোতল ব্যবহারের পর তা বাইরে নিয়ে যাওয়া বা ফেলা চলবে না। যাত্রীদের কাছ থেকে খালি বোতল সংগ্রহ করবেন ক্যাটারিং কর্মীরা। এছাড়া যাত্রীরা স্টেশনে জলের বোতল ব্যবহারের পর খালি বোতল ক্রাসিং মেশিনে ঢুকিয়ে দিতে হবে। এজন্য প্রতিটি স্টেশনে বোতল ক্রাসিং মেশিন বসাবে রেল।

একেবারে নির্দিষ্ট দিনে এই পরিষেবা চালু করার জন্য যে পদক্ষেপ করা প্রয়োজন তা যেন জোন ও ডিভিশনগুলো আগাম করে ফেলে। জিএম ও ডিআরএমদের পার্সোনাল মেসেজ পাঠিয়েছেন রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদব।

স্টেশনে ভেন্ডারদেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তাঁরা যেন প্লাস্টিকের ক্যারিব্যাগ ব্যবহার না করেন। যাত্রীরাও যেন সতর্ক থাকেন এ নিয়ে। ৫০ মাইক্রনের নিচে প্লাস্টিক নিয়ে স্টেশন, ট্রেন ও মেট্রো স্টেশনে না ঢোকেন। পরিবেশকে দূষণমুক্ত রাখতে রেল এই উদ্যোগ নিয়েছে।

রেল কর্তারা জানিয়েছেন, প্লাস্টিক এমন এক রাসায়নিক পদার্থ যা পরিবেশে পচতে ও পুনঃপ্রক্রিয়াণের জন্য বহু সময় নেয়। ‘অপচ্য’ হওয়ায় পরিবেশে দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতির প্রভাব পড়ে। প্লাস্টিক উদ্ভিদ ও জলজ প্রাণীর ক্ষতির সঙ্গে মানুষেরও ক্ষতি করে। হরমোনের অতিরিক্ত ক্ষতির কারণ এই প্লাস্টিক দূষণ।

পরিবেশকে সুস্থ রাখতে আমেরিকায় ২৪ শতাংশ প্লাস্টিক পুণঃচক্রায়ণ করা হয়। বাংলাদেশও প্লাস্টিক ব্যবহারের উপর আইন প্রনয়ণ করে। এবার ভারতীয় রেলও পদক্ষেপ করল স্টেশন ও ট্রেনের যাত্রীদের প্লাস্টিক ব্যবহারের উপর।