ফখরুদ্দিন কখনও এসপি, কখনও ডিআইজি!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: 7:42 PM, January 14, 2020 | আপডেট: 7:42:PM, January 14, 2020

ডিআইজি-এসপি পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে ফখরুদ্দিন মোহাম্মদ আজাদ নামে এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার রাতে রাজধানী ঢাকার খিলগাঁও এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় তার সহযোগী ও গাড়ি চালক রুবেলকে আটক করা হয় এবং প্রতারকের ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার জব্দ করে পুলিশ।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, ফখরুদ্দিন মোহাম্মদ আজাদ দীর্ঘদিন যাবৎ ডিআইজি, এসপিসহ পুলিশের বিভিন্ন কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছিলেন। এ পর্যন্ত অন্তত ১১ জন তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের প্রতারণার অভিযোগ করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে কুমিল্লা জেলা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশের পরিচয় দিয়ে পুলিশে চাকরি দেয়া ও বদলিসহ নানান কাজ করে দেবার প্রতিশ্রুতিতে এসব টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল ফখরুদ্দিন।

ব্যক্তি ও পরিবেশ বিবেচনায় কখনও ডিআইজি, কখনও এসপির পরিচয় দেয় সে। ১৯৯১ সালে ফখরুদ্দিন সাব-ইন্সপেক্টর পদে যোগ দিলেও ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সে চাকরিচ্যুত হয়। ২০০০ সালে ডিবি পুলিশের পরিচয়ে ছিনতাইকালেও গ্রেফতার হয়। ছাড়া পেয়ে সে আবারও প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ড চালায়। প্রতারক ফখরুদ্দিন কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার বাকই গ্রামের মৃত আবদুল হামিদের ছেলে।

ফখরুদ্দিনের খিলগাঁওয়ের বাসা থেকে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার পোশাক পরিহিত ছবি, ব্যবহৃত ভুয়া সিল ও অফিসিয়াল ডকুমেন্ট উদ্ধার করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, মো. শাখাওয়াত হোসেন, তানভীর সালেহীন ইমন প্রমুখ।