ফের গোমূত্র খাওয়ানো হচ্ছে গুজরাটের কোভিড কেয়ার সেন্টারে

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০২১ | আপডেট: ৮:২৯:অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০২১

ভারতে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় গোমূত্র ও গোবরের ব্যবহার বেশ আলোচনায় এসেছিল গত বছর। এ বছরও অব্যাহত রয়েছে সেই ধারা। সম্প্রতি গুজরাটের একটি গ্রামে গোয়ালঘরে গড়ে তোলা হয়েছে কোভিড কেয়ার সেন্টার। আর সেখানে রোগীদের দেয়া হচ্ছে গোমূত্র থেকে তৈরি ‘আয়ুর্বেদিক ওষুধ’।

সেখানে সকাল বিকেল রোগীদের দুধ এবং ঘিয়ের সঙ্গে গোমূত্র মিশিয়ে খাওয়ানো হচ্ছে। অবৈজ্ঞানিক এই ঘটনা ঘটছে গুজরাটে। এখনো পর্যন্ত সরকার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশে বালিয়ার বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিংহ ভিডিও পোস্ট করেছেন সোশ্যাল নেটওয়ার্কে। সেখানে দেখানো হয়েছে সকালে খালি পেটে কী ভাবে গোমূত্র পান করতে হবে। ভিডিওতে দাবি করা হয়েছে, গোমূত্র পান করলে করোনা হবে না।

গুজরাটের বনসকণ্ঠা জেলার একটি গ্রামে কোভিড কেয়ার সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। বস্তুত গোটা দেশেই কোভিডের ভয়াবহতার কারণে অসংখ্য কোভিড কেয়ার সেন্টার তৈরি হয়েছে। সেখানে রোগীদের ভর্তি করে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আইসোলেশনের ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

কিন্তু গুজরাটের কোভিড কেয়ার সেন্টারটি সম্পূর্ণ অন্যরকম। একটি গোয়ালঘর বা গোশালায় তৈরি হয়েছে সেন্টারটি। যার দেওয়ালে লেপা রয়েছে গোবর। চিকিৎসার জন্য দেওয়া হচ্ছে দুধ, ঘি এবং গোমূত্র। সেন্টারের কর্মকর্তাদের দাবি, আয়ুর্বেদিক প্রক্রিয়ায় চিকিৎসা চলছে বলেই এ ধরনের জিনিস খাওয়ানো হচ্ছে রোগীদের।

যদিও চিকিৎসকদের বক্তব্য, এতে শরীরের আরো বেশি ক্ষতি হচ্ছে। চিকিৎসক সাত্যকি হালদারের বক্তব্য, ”এই ধরনের চিকিৎসার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। গোমূত্র পান করে শরীরে নানা সমস্যা হতে পারে। অতীতে তেমন ঘটনা আমরা দেখেছি।” গুজরাটের ওই কোভিড সেন্টারটির বিরুদ্ধে সরকার অবশ্য কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

উত্তরপ্রদেশে গোমূত্র খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বালিয়ার বিধায়ক সুরেন্দ্র সিংহ। দুইদিন আগে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন তিনি। যেখানে বলা হয়েছে, সকালে খালি পেটে ৫০ মিলিলিটার গোমূত্র সঙ্গে ১০০ মিলিলিটার জল মিশিয়ে খেলে করোনা হবে না। এই বিধায়কের বিরুদ্ধেও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

কিছুদিন আগেই ল্যানসেট পত্রিকায় একটি লেখা প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, করোনার প্রথম ঢেউ ভারত ভালোভাবে সামলালেও দ্বিতীয় পর্যায়ের ঢেউ সামলাতে ব্যর্থ হচ্ছে। তার জন্য সরকারকেই দায়ী করা হয়েছে। সম্প্রতি নেচার পত্রিকাতেও একই কথা বলা হয়েছে। বিজেপি অবশ্য এই লেখাগুলিকেও চক্রান্ত বলে উড়িয়ে দিচ্ছে। তারই মধ্যে এই দুইটি ঘটনা সামনে আসায় বিরোধীরা আরো সরব হয়েছে।

সূত্র: ডয়চে ভেলে।