ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি, চবির সেই সহকারী অধ্যাপক বহিষ্কার

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ৮:২৯:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

ফেসবুকে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের পক্ষ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করার অভিযোগে দায়ের হওয়া তথ্যপ্রযুক্তির মামলায় গ্রেফতারের পর শিক্ষক মাইদুল ইসলামকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার তাকে এ বহিষ্কার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন চবির উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

উপাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুযায়ী- কোনো শিক্ষক গ্রেফতার হলে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। সে হিসেবে সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলামকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

এর আগে সোমবার চবির এই শিক্ষককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। উচ্চ আদালতের ৮ সপ্তাহের জামিন শেষে সোমবার চট্টগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল হোসেনের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন শিক্ষক মাইদুল। শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবী দুলাল লাল ভৌমিক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত ৬ আগস্ট বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম ও মো. মোস্তাফিজুর রহমানের দ্বৈত বেঞ্চ তাকে আট সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছিলেন। এরপর উচ্চ আদালতের আদেশে তাকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছিল। সোমবার আমরা জামিন আবেদন করেছি। কিন্তু শুনানি শেষে আদালত সেটা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, দেশব্যাপী কোটাবিরোধী আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের সমর্থনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সোচ্চার ছিলেন চবি শিক্ষক মাইদুল ইসলাম। গত ২৩ জুলাই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ইফতেখার উদ্দিন আয়াজ তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে হাটহাজারী মডেল থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। পরে সেটি যাচাই-বাছাই করে মামলায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়।