ফেসবুক ভেঙ্গে দেয়ার প্রস্তাব, ট্রাম্পকে যা বললেন জাকারবার্গ

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: 11:46 AM, September 20, 2019 | আপডেট: 11:46:AM, September 20, 2019
হোয়াইট হাউজে জাকারবার্গের সঙ্গে ট্রাম্পের সাক্ষাত। ছবি: টুইটার

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কংগ্রেসের কয়েকজন সদস্যের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ। বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে ওই সাক্ষাতের সময় ফেসবুক ভেঙে দেয়ার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেন তিনি। খবর এএফপির।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জাকারবার্গের সঙ্গে সাক্ষাতের একটি ছবি টুইটারে পোস্ট করেন।

সেখানে দেখা গেছে, হাত মিলিয়ে জাকারবার্গের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময় করছেন ট্রাম্প। ক্যাপশনে ট্রাম্প লিখেছেন- ওভাল অফিসে দারুণ সাক্ষাৎ হলো ফেসবুকের মার্ক জাকারবার্গের সঙ্গে।

তাদের এ সাক্ষাতের বিষয়ে হোয়াইট হাউস থেকে আর কিছু না জানানো হলেও বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, বৃহস্পতিবার ওভাল অফিসে ওই সাক্ষাৎকারে জাকারবার্গকে ফেসবুক ভেঙে দেয়ার আহ্বান জানান ট্রাম্প। আর ট্রাম্পের সেই আহ্বান প্রত্যাখ্যানও করেন মার্ক জাকারবার্গ।

ওই সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প ও জাকারবার্গের মধ্যে ভবিষ্যৎ ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণ এবং এ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফেসবুকের একজন মুখপাত্র।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী, বছরজুড়েই ফেসবুকের বিরুদ্ধে ওঠা প্রতিযোগিতা, ডিজিটাল প্রাইভেসি, সেন্সরশিপ ও রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন নিয়ে স্বচ্ছতার আইনি প্রশ্নে জর্জরিত জাকারবার্গ। বিভিন্ন সরকারি তদন্তের মুখে পড়েছে ফেসবুক।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, এমন পরিস্থিতিতে ওয়াশিংটনে তিন দিন ধরে বিভিন্ন আইনপ্রণেতার সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন জাকারবার্গ। ফেসবুকের ওপর চাপ সরাতেই আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন জাকারবার্গ।

এ বিষয়ে ফেসবুকের সমালোচক হিসেবে পরিচিত জশ হাওলে বলেন, জাকারবার্গের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। ফেসবুকে পক্ষপাত, প্রাইভেসি ও প্রতিযোগিতা বিষয়ে জাকারবার্গকে দুটি প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। একটি হচ্ছে- হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রাম বিক্রি করে দেয়া। আরেকটি হচ্ছে- সেন্সরশিপ বিষয়ে স্বাধীন তৃতীয় পক্ষের কাউকে দায়িত্ব দেয়া।

জাকারবার্গ দুটি প্রস্তাবই প্রত্যাখ্যান করেছেন বলে জানান জশ হাওলে।