ফ্লয়েড হত্যার রায়ের দিনেই যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গ কিশোরী নিহত

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:২৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২১ | আপডেট: ৮:২৮:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যার রায়ের দিন আরেক কৃষ্ণাঙ্গ কিশোরী পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ওহাইও অঙ্গরাজ্যের সবচেয়ে বড় শহর কলম্বাসে এ ঘটনা ঘটেছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

গুলিবিদ্ধ হওয়ার আগে ওই কিশোরী দুই ব্যক্তিকে ছুরি হাতে তাড়া করছে, এক পুলিশ সদস্যের শরীরে লাগানো ক্যামেরার ফুটেজে এমনটি দেখা গেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ফ্লয়েড হত্যায় অভিযুক্ত সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক শভিনকে দোষী সাব্যস্ত করে দেওয়ার রায়ের কিছুক্ষণ আগে ওই কিশোরী পুলিশের গুলিতে নিহত হন। এ ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার প্রতিবাদে কলম্বাসের রাস্তায় বিক্ষোভ হয়েছে।

বিবিসি জানায়, পুলিশের গুলিতে নিহত কিশোরীর নাম ম্যাকিয়া ব্রায়ান্ট। এ ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর ওই পুলিশ কর্মকর্তার শরীরে লাগানো ভিডিও ক্যামেরার ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, গুলিবিদ্ধ হওয়ার আগে ওই কিশোরী দুই ব্যক্তিকে ছুরি হাতে তাড়া করছে।

ওই পুলিশ সদস্যের পরিচয় এখনও প্রকাশ করা হয়নি। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে ‘দায়িত্ব থেকে সরিয়ে রাখা হবে।

কলম্বাস ডিসপ্যাচ পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা ৪৫ মিনিটের দিকে কলম্বাসের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চল থেকে পুলিশ ডাকা হয়েছিল।

পুলিশের ক্যামেরা ফুটেজে দেখা গেছে, একটি বাড়ির বাইরে কয়েকজনের মধ্যে বিরোধ বাধে। মাখিয়া ব্রায়ান্ট ছুরি হাতে তাদের তাড়া করে।

তারপরে এক পুলিশ কর্মকর্তা চিৎকার করে তাদেরকে শান্ত হতে বলে। এরপরই মেয়েটিকে গুলি করা হয়।

কর্মকর্তারা জানান, ছুরি হাতে যাকে তাড়া করা হয়েছিল তার জীবন বাঁচাতে পুলিশ গুলি চালাতে বাধ্য হয়।

তবে স্থানীয় গণমাধ্যমে নিহত কিশোরীর আত্মীয়রা জানান, ম্যাকিয়া ব্রায়ান্টকে আক্রমণ করা হয়েছিল। সে কেবল আত্মরক্ষার চেষ্টা করেছে।

স্থানীয় ব্রডকাস্টার ডব্লিউবিএনএস-টিভিতে কথা বলার সময় নিহত কিশোরীর মা পাওলা ব্রায়ান্ট বলেন, এটা হওয়া উচিত না। আমি এর জবাব চাই।

ঘটনার পর এক সংবাদ সম্মেলনে কলম্বাস পুলিশের অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান মাইক উডস বলেছেন, ওহাইও অপরাধ তদন্ত ব্যুরো ঘটনাটি তদন্ত করছে।

পুলিশের গুলিতে কিশোরীর নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সেই বাড়িটির কাছে কয়েকজন বিক্ষোভকারী জড়ো হয়।