বইতে যেসব কথা এড়িয়ে গেছেন এসকে সিনহা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৪০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বই ‘এ্যা ব্রোকেন ড্রিম’ নিয়ে চলছে আলোচনা- সমালোচনা।

তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অর্থপাচার, নৈতিক স্থলনসহ ১১টি অভিযোগ থাকলেও সময়ের অভাবে আইনের আওতায় আনা যায়নি বলে দাবি করেছেন বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেছেন, সাবেক এই প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকার পরও তাকে বিচারের আওতায় না এনে সংবিধান লংঘন করেছে সরকার।

আর আইনমন্ত্রী বলেছেন, এস কে সিনহার দুর্নীতি খতিয়ে দেখছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন ক্রেতাদের সামনে হাজির করে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বই ‘এ্যা ব্রোকেন ড্রিম: রুল অব ল, হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড ডেমোক্রেসি’।

বইয়ে বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করলেও, এড়িয়ে গেছেন তার বিরুদ্ধে ওঠা বিভিন্ন অভিযোগ।

ক্ষমতার অপব্যবহার করে সম্পদ অর্জন, মানি লন্ডারিং, যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষের ব্যক্তিদের সঙ্গে বৈঠক সহ ১১টি সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সঙ্গে একসাথে এজলাসে বসতে আপত্তি জানান আপিল বিভাগের অন্য বিচারপতিরা।

বইয়ে এ’সব বিষয় এড়িয়ে এস কে সিনহা দাবি করেছেন, ষোড়শ সংশোধনীর বিরুদ্ধে রায় দেয়ার কারনে দেশ ছাড়তে বাধ্য হন তিনি।

বার কাউন্সিলের সহ-সভাপতি ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেছেন, প্রধান বিচারপতির পদটি স্পর্শকাতর। এই পদের ব্যক্তির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার আগে অনেক কিছু ভাবতে হয়। আর এস কে সিনহার বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়ার সময়ই বিদেশে পাড়ি জমান তিনি।

সাবেক প্রধান বিচারপতি সিনহাকে সরকারই বিচারের আওতায় আনে নি বলে দাবি করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন। তিনি বলেছেন, তার বিচার না করে সংবিধানেরই লংঘন করা হয়েছে।

আর আইনমন্ত্রী বলেছেন, এস কে সিনহার দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক।

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বইটিকে আত্মজীবনীমূলক উল্লেখ করলেও, বিশ্লেষণে উঠে আসছে রাজনৈতিক বিষয়।

একুশে টেলিভিশন