বক্তব্যে অটল রায়হান, আইনজীবীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:২৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০ | আপডেট: ১:২৭:অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২০

আল জাজিরায় প্রচারিত একটি তথ্যচিত্রে সাক্ষাৎকার দিয়ে মালয়েশিয়ার কারাগারে থাকা রায়হান কবির তার পূর্বের বক্তব্যে অটল রয়েছেন।

তবে অনিচ্ছাকৃতভাবে মালয়েশিয়ান সরকার ও জনগণকে আঘাত দিয়ে থাকলে তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন রায়হান। বুধবার রায়হান কবিরের সঙ্গে দেখা করার পর এ তথ্য জানিয়েছেন তার আইনজীবী সুমিথা সানথিন্নি ও সি সেলভারাজা।

আইনজীবীরা বলেন, তারা এক ঘণ্টার মতো রায়হান কবিরের সঙ্গে কথা বলেছেন। এসময় রায়হান তার বক্তব্যে করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের মধ্যে অভিবাসন বিভাগ প্রবাসীদের প্রতি যে আচরণ করেছে, আর সে যা দেখেছে শুধু সেটাই প্রতিবেদনে বলার চেষ্টা করেছেন।

রায়হান বলেন, মালয়েশিয়ান সরকার ও জনগণের সম্মানহানি করার কোনও লক্ষ্য বা উদ্দেশ্য আমার ছিল না। তারপরও আমার মন্তব্যে কষ্ট পেয়ে থাকলে মালয়েশিয়ার সরকার ও জনগণের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি।

আইনজীবীরা জানান, কারা অভ্যন্তরে রায়হানের সঙ্গে ভালো আচরণ করা হচ্ছে, তবে সে খুব শিগগিরই পরিবারের কাছে ফিরতে চায় বলে জানান তারা।

এদিকে এই তথ্যচিত্রের সঙ্গে রায়হানের সম্পৃক্তা ও এর পেছনে আর কোনও উদ্দেশ্য আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে এবং তা আরও চলবে বলে জানিয়েছে বুকিত আমানের উপ-পুলিশ কমিশনার মিয়র ফরিদালাথ্রাশ ওয়াহিদ।

উল্লেখ্য, ৩ জুলাই আল জাজিরায় প্রচারিত একটি তথ্যচিত্রে সাক্ষাৎকার দেন রায়হান। যেখানে করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের মধ্যে অভিবাসীদের আটক করা নিয়ে অমানবিকতার অভিযোগ তোলা হয়।

সাক্ষাৎকার দেয়ার অপরাধে ইতোমধ্যে রায়হানের ভিসা বাতিল ও কালো তালিকাভুক্ত করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন। আটকও করা হয়েছে রায়হানকে।

এদিকে ব্র্যাকের অভিবাসন বিভাগের প্রধান শরিফুল হাসান তার ব্যক্তিগত ভেরিফাইড ফেসবুকে রায়হানকে নিয়ে লিখেছেন, রায়হান পরিষ্কার করে বলেছে, কেউ যদি আমার বক্তব্যে কষ্ট পায় সেজন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

তবে আমি যা দেখেছি তাই বলেছি। আমি আমার বক্তব্যে অটল। রায়হানের আইনজীবী সুমিতার কাছে আমি বারবার জানতে চেয়েছি রায়হান তার বক্তব্যে কি বলেছে?

উত্তরে সুমিতা বলেছে, রায়হান তার বক্তব্যে অটল। সে বলেছে, কোভিড-19 এর সময় প্রবাসীদের প্রতি যে আচরণ তিনি দেখেছেন সেটাই বলেছেন। তবে তিনি মালয়েশিয়ার কাউকে আহত করতে চাননি।