বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের চোখ এবার বাণিজ্যিক সম্প্রচারে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৫৪:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮

টিবিটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিঃপরীক্ষামূলক সম্প্রচারের প্রথম ধাপটা সাফল্যের সঙ্গে শেষ হয়েছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের। এবার বণিজ্যিক কার্যক্রমের পালা। এখন সেদিকেই মনোযোগ দিতে চান কর্মকর্তারা।

দেশের একমাত্র এ স্যাটেলাইট পরিচালনাকারী কোম্পানি বাংলাদেশ কমিউনেকশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটিড (বিসিএসসিএল) আগামী মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে বানিজ্যিক সম্প্রচারে যেতে চায়।কর্মকর্তারা জানান, প্রথম দফার পর্যবেক্ষণ বলছে স্যাটেলাইটের সম্প্রচার মান খুবই ভালো।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিটিভির সম্প্রচার দেখেছেন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।গত সপ্তাহে ঢাকায় শুরু দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষ ফুটবল প্রতিযোগিতা সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পরীক্ষামূলক সম্প্রচার হচ্ছে দেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ এর মাধ্যমে। এ প্রতিযোগিতা চলবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

ততদিন পর্যন্ত পরীক্ষামূলক সম্প্রচারের পর্যবেক্ষণ চালাবে বিসিএসসিএল।মূলত চ্যানেল নাইনের প্রডাকশন হলেও বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সেটি সম্প্রচার করছে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন বিটিভি। আর তাদের ফিড নিয়ে আরও অন্তত ২০টি বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন পরীক্ষা করছে।

এ বিষয়ে সম্প্রচারের শুরুর দিন টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার লেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রথম পরীক্ষাতেই দারুণ সফল। কোনো ধরনের ক্রটি ছাড়াই এটি কাজ করছে। অফিসিয়াল হস্তান্তরের আগেই এর সেবা পাওয়ায় খুশি সবাই।

বিসিএসসিএল বলছে, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের মতো একটি বড় উপলক্ষকে কেন্দ্র করে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর ব্যবহার সার্ক অঞ্চলে একটি বার্তা পৌঁছে দিয়েছে।প্রথম পরীক্ষাতেই সফলতা আসায় আগামী অক্টোবর থেকে বাণিজ্যিক সম্প্রচারের জন্য কাজ শুরু করেছে বিসিএসসিএল। এর অংশ হিসেবে স্থানীয় টেলিভিশনগুলোকেও প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

এর আগে অবশ্য স্যাটেলাইটের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান থ্যালাস আরও একটি কারিগরি পরীক্ষা চালাবে। তারপর স্যাটেলাইটটিকে বিসিএসসিএলের কাছে হস্তান্তর করা হবে। গত ১১ মে যুক্তরাষ্ট্রের কেপ কার্নিভাল থেকে দেশের প্রথম স্যাটেলাইটটি মহাকাশে উৎক্ষেপণ হয়। সব মিলে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করতে খরচ হয়েছে দুই হাজার ৭৬৫ কোটি টাকা।

আগামী সাত বছরের মধ্যে এ খরচ উঠবে আসবে বলে প্রাক্কলন করেছে উৎক্ষেপণকারী সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।ইতিমধ্যে সরকারের বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় এ স্যাটেলাইট থেকে সংযোগ নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে। তাছাড়া কোম্পানির পক্ষ থেকে সেবা নিতে ৪৫ মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।