বল এখন যুক্তরাষ্ট্রের কোর্টে : রুহানি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২০, ২০২১ | আপডেট: ৯:১৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২০, ২০২১

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ২০১৫ সালে ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে তেহরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তিতে ফিরতে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
ডেমোক্র্যাট বাইডেন বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। তিনি ওয়াশিংটনকে ইরান পরমাণু চুক্তিতে ফিরিয়ে নিতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

রুহানি তার বক্তব্যে বাইডেনকে ইরানের উপর যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতেও আহ্বান জানিয়েছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আজ বুধবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত ইরানি মন্ত্রিসভার বৈঠকে তিনি বলেন, ‘বল এখন মার্কিন কোর্টে। ওয়াশিংটন যদি ইরানের সঙ্গে করা ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তিতে ফিরে আসে, তাহলে আমরাও এই চুক্তির আওতায় আমাদের প্রতিশ্রুতিগুলোর প্রতি পুরোপুরি শ্রদ্ধা জানাবো।

ইরানি প্রেসিডেন্ট বলেন, নতুন মার্কিন প্রশাসন আইনের শাসনে ফিরে আসবে এবং প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হবে বলে আজ আমরা প্রত্যাশা করছি। তারা যদি আগামী চার বছরে তা করতে পারে, তবে বিগত চার বছরের কালো দাগগুলোও অপসারণ করতে পারবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের রাজনৈতিক জীবন আজ শেষ হয়েছে এবং ইরানের বিষয়ে তার সর্বাধিক চাপ প্রয়োগের নীতি পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। ট্রাম্প শেষ হয়ে গেলেও পারমাণবিক চুক্তি এখনো বেঁচে আছে, যোগ করেন তিনি।

এর আগে সম্প্রতি জো বাইডেন বলেছিলেন, তেহরান যদি কঠোরভাবে আইন মেনে চলতে শুরু করে, তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই চুক্তিতে পুনরায় ফিরে আসবে এবং ইরানের পারমাণবিক নিষেধাজ্ঞাগুলো শিথিল করা হবে।

আজ বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন ডেমোক্র্যাটিক জো বাইডেন। আর তার ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে হোয়াইট হাউসে যাচ্ছেন রানিংমেট কমলা হ্যারিস।

মূলত ২০১৮ সাল থেকে তেহরান এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে যায়। সে সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একতরফাভাবে ইরান এবং পাঁচটি বিশ্ব শক্তি ও একটি সংস্থার মধ্যে স্বাক্ষরিত ২০১৫ সালের পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে নিয়ে যান। সেইসঙ্গে তেহরানের ওপর অস্ত্র ও অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে মার্কিন প্রশাসন।