বাংলাদেশের জলসীমায় অনুপ্রবেশ: জেলহাজতে ১০৩ ভারতীয় জেলে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৪৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০ | আপডেট: ১১:৪৪:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

বাগেরহাটের মোংলায় নৌ-বাহিনীর হাতে আটক ২৬ ভারতীয় জেলেকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। আজ রোববার ১৯৮৩ সালের সমুদ্রে সীমালঙ্ঘন ও সামুদ্রিক মৎস্য অধ্যাদেশের ২২ ধারায় পৃথক দুটি মামলায় তাদের বাগেরহাট জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হয়। এ নিয়ে গত অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত আটক ভারতীয় জেলের সংখ্যা দাঁড়াল ১০৩ জনে।

মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, গত শুক্রবার দিবাগত রাতে বঙ্গোপসাগরের ফেয়ারওয়ে বয়ার আনুমানিক ৭০ কিলোমিটার উত্তরে বাংলাদেশের জলসীমার উত্তর পশ্চিমে বেশ কয়েকটি ট্রলার নিয়ে ভারতীয় জেলেদের সীমানায় ঢুকে মাছ শিকার করতে দেখে নৌ-বাহিনীর টহল দল।

এ সময় মোংলা দ্বিগরাজের সদর কন্টিনজেন্টের নৌ-সেনারা তাদের ধাওয়া দিলে ট্রলার ও জাল নিয়ে দ্রুত তারা ভারতের সীমানায় চলে যায়। পরে তাদের ট্রলারসহ আটক করে মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়।

বঙ্গোপসাগরের গভীর সমুদ্র থেকে শনিবার রাতে তাদের মোংলা থানায় আনা হয় এবং আটক জেলেদের নামে মামলা করা হয়। আজ রোববার সকালে তাদের বাগেরহাট ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। আটক জেলেদের বাড়ি ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার বিভিন্ন এলাকায় বলে জানা গেছে।

একই অভিযোগে গভীর সমুদ্র থেকে গত ১ অক্টোবর ১৫ জন, ৪ অক্টোবর ২৩ জন ও ১৪ অক্টোবর ১১ জন, ২২ অক্টোবর ১৪ জনকে, ১০ ডিসেম্বর কোস্টগার্ড বাহিনীর হাতে ১৪ জন এবং শেষে সর্বশেষ ১৭ জানুয়ারি দুটি ট্রলারসহ আরো ২৬ ভারতীয় জেলেকে আটক করা হয়। এ নিয়ে মোট ৯টি ট্রলারসহ ১০৩ জন ভারতীয় জেলেকে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীর সদস্যরা আটক করেছেন। আটক জেলেরা বর্তমানে বাগেরহাট জেলহাজতে আছে বলে নিশ্চিত করেছেন ওসি ইকবাল বাহার।