বাংলাদেশ থেকে ধার করে স্লোগান দেন মমতা: শুভেন্দু

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৩০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১১, ২০২১ | আপডেট: ৯:৩০:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১১, ২০২১

কোচবিহারের শীতলকুচিতে ভারতের কেন্দ্রীয় বাহিনী গণহত্যা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবারের (১০ এপ্রিল) সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হওয়ার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে মমতা বলেন, আসল ঘটনা ধামাচাপা দিতে মরিয়া কেন্দ্রীয় সরকার।

অন্যদিকে তৃণমূলত্যাগী বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী আবারও মমতাকে কটাক্ষ করে বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে স্লোগান ধার করে বক্তব্য দেন তিনি।

এদিকে চলমান বিধানসভা ভোটের প্রচারে পশ্চিমবঙ্গ সফরে আসার কথা জানিয়েছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা রাহুল গান্ধী।

বিধানসভা নির্বাচনের ৪র্থ দফার ভোটে, শীতলকুচিতে ব্যাপক সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হওয়ার জেরে উত্তপ্ত পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি। এ ঘটনার পর থেকেই পাল্টা-পাল্টি বক্তব্য দিচ্ছেন তৃণমূল ও বিজেপির নেতারা। ওই সংঘর্ষের পর সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিহতরা সবাই তৃণমূল সমর্থক দাবি করে মমতা বলেন, কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী সরাসরি তার কর্মীদের ওপর গুলি চালিয়েছে। একে গণহত্যার সাথেও তুলনা করেন তিনি।

অন্যদিকে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারী আবারো মমতাকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দিয়েছেন। শনিবার ৫ম দফার নির্বাচনী প্রচারে দমদমে গিয়ে তিনি মমতাকে ‘বেগম’ বলে সম্মোধন করে বলেন, তিনি একের পর এক দেশবিরোধী কথা বলে যাচ্ছেন। মমতার স্লোগানের অধিকাংশই বাংলাদেশের নেতাদের কাছ থেকে ধার করা বলেও মন্তব্য করেন শুভেন্দু।

ভোটের মাঠে সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে যখন পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি উত্তপ্ত, তখন দেশটির নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, তদন্তের স্বার্থে এবং পরিস্থিতি শান্ত রাখতে কোচবিহারে কোন রাজনৈতিক নেতা প্রবেশ করতে পারবেন না। একইসঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে শনিবারের সংঘর্ষের ঘটনার প্রতিবেদনও তলব করেছে কমিশন।

এদিকে ভোট গ্রহণের মাঝ পর্যায়ে এসে নির্বাচনী প্রচারের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সফরের কথা জানিয়েছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা রাহুল গান্ধী। আগামী ১৪ এপ্রিল তিনি দিনাজপুর এবং দার্জিলিংয়ে দুটি জনসভায় অংশ নেবেন বলে জানিয়েছে তার দল।