বাউফলে স্ত্রীর পরকিয়া প্রেমিকের সহায়তায় স্বামীর চোখ উৎপাটনের চেষ্টা!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:২৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১ | আপডেট: ৮:২৩:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১

অতুল পাল, বাউফল(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: বাউফলে স্ত্রীর পরকিয়া প্রেমিক, স্ত্রী এবং শ্বাশুরী মিলে স্বামীর চোখ উৎপাটনের চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় গুরুতর অসুস্থ্য স্বামী মিরাজ হোসেনকে(৩৫)প্রথমে বাউফল হাসপাতাল এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল চক্ষু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) রাত নয় টার দিকে উপজেলার দাসপাড়া ইউনিয়নের দাসপাড়া গ্রামে ওই লোমহর্ষক ঘটনা ঘটেছে। মিরাজ হোসেন বাংলাদেশ মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অধিদপ্তরের একজন কর্মচারী।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ২১০৮ সালে ৪ এপ্রিল ঢাকা শহরের সার্ক ফোয়ারার সামনে দুই বাসের রেশারেশিতে তিঁতুমির কলেজের ছাত্র বহুল আলোচিত বাউফলের রাজিব গুরুতর আহত হয় এবং ১৭ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।

এরপর সরকার তার পরিবারের দায়িত্ব নিয়ে অভিভাবক হিসেবে মামা মিরাজকে বাংলাদেশ মাদ্রাসা ও কারিগড়ি শিক্ষা বোর্ডে একটি চাকুরী দিয়ে পূর্ণবাসন করেন। মিরাজের বাড়ি উপজেলার দাসপাড়া গ্রামে। বাড়ির পাশেই মিরাজ বিয়ে করেন। তাদের ঘরে আলিফ(৭) নামের একটি শিশু সন্তান রয়েছে। লকডাউন উপলক্ষে মিরাজ বাড়ি আসেন।

এসময় স্ত্রী সন্তানসহ তার বাবার বাড়ি ছিল। স্ত্রীকে বাড়ি আসতে বললে সে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন। এরপর বৃহষ্পতিবার তারাবি নামাজ শেষে মিরাজ স্ত্রী-সন্তানকে আনতে শ্বশুর বাড়ি যান। শ্বশুর ঘরে ঢুকেই স্ত্রীকে তার পরকিয়া প্রেমিকের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখেন।

এসময় স্ত্রী ও তার পরকিয়া প্রেমিক মিরাজকে বিছানায় টেনে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার চোখ উৎপাটনের চেষ্টা করেন। একাজে মিরাজের শ্বাশুরীও এগিয়ে আসেন বলে জানা যায়। এক পর্যায়ে মিরাজের ডাকচিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে বাউফল হাসপতালে নিয়ে যান। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার তপন কুমার বিশ্বাস জানান, চোখের অবস্থা আশংকাজনক তাই প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎস্যার জন্য মিরাজকে বরিশাল চক্ষু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে মিরাজের শ্বশুর সোহরাব হোসেন জানান, জামাতার সাথে মেয়ের প্রায়ই ঝগড়া হতো। কিন্তু এরকম দুর্ঘটনা ঘটবে আসা করিনি। বাউফল থানার ওসি আল মামুন (তদন্ত) জানান, মিরাজের স্বজনরা অভিযোগ দিয়েছে, আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।