বাকৃবিতে একক বাস ট্রিপ চেয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

প্রকাশিত: ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | আপডেট: ৯:৪৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ে (বাকৃবি) বাস থেকে বহিরাগতদের নামিয়ে দিয়ে বাস আবরোধ করে শুধু শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা বাস ট্রিপ চালুর দাবিতে আন্দোলন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার দিকে বিশ^বিদ্যালয়ের জব্বারের মোড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস অবরোধ করে এ আন্দোলন করে শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনের এক পর্যায়ে সেখানে বিশ^বিদ্যালয়ের সহযোগী ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাাপক ড. মো. আজহারুল ইসলাম, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল হক উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য বললে শিক্ষার্থীরা এক পর্যায়ে রাজি হন । আলোচনায় শিক্ষার্থীরা তাদের দাবিগুলো তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো বাস এবং বাসের ট্রিপ সংখ্যা বাড়াতে হবে, বাসের সামনে সাইনবোর্ডে কোন বাস কোন রোডে যাবে তা লিখা থাকতে হবে এবং সর্বপোরি শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা বাস নিশ্চিত করতে হবে।

প্রায় এক ঘন্টা আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন বিশ্বাবদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মো. ছোলায়মান আলী ফকির, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল হক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. সুবাস চন্দ্র দাস এবং ফসল উদ্ভিদ বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. এ এক এম জাকির হোসেন।

আলোচনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. সুবাস চন্দ্র দাস বলেন, আপাতত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একক বাসের জন্য আলাদা ট্রিপ চালু করা সম্ভব নয়। তবে দুটি নষ্ট গাড়ি রয়েছে যা মেরামত করলে সারাদিনের কিছু ট্রিপে শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা বাসের ব্যাবস্থা করা যেতে পারে। তবে এই বক্তব্যে সন্তুষ্ট হতে পারেননি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের আবার আলোচনায় বসার কথা বলে ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা এবং পরিবহন শাখার পরিচালক আলোচনা কক্ষ থেকে বের হয়ে যান।

শিক্ষার্থীরা বলেন, বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বাস দেয়া হলেও সেখানে কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং বহিরাগতরা সিট দখল করে যাতায়াত করে। এতে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সিট না পেয়ে দাড়িয়ে যেতে হয়। এমনকি মেয়েদের দাড়িয়ে যেতে হয় যেখানে বহিরাগতরা বাসের সিটে বসে যায়। তাই অবিলম্বে আমরা প্রশাসনের কাছে শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা বাস নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি।