বাগেরহাটে লবণ কিনতে উপচে পড়া ভীড়

অতিরিক্ত দাম নিচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা

প্রকাশিত: ৬:৫৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯ | আপডেট: ৬:৫৬:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

বাগেরহাটে লবণ সংকটের গুজব ছড়িয়ে পড়লে বিকাল থেকে লোকজন ছুটতে থাকে বাজারে। লবন কিনতে দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভীড় লেগে যায়। এই সুযোগে এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ী বিভিন্ন ব্রান্ডের লবণ কেজি প্রতি ৫০ থেকে একশত টাকা দরে বিক্রি শুরু করে।

অনেকে দোকান থেকে ১০ থেকে ২০ কেজি এমনকি ৪০ কেজি লবণ কিনে বাসায় ফিরতে থাকে। তবে, অধিকাংশ দোকানীকে নির্ধারিত দামেই লবণ বিক্রিকরতে দেখা গেছে। লবণ সংকট নিয়ে গুজবের বিষয়টি বাগেরহাটের জেলা প্রশাসনের নজয়ে আসলে লবণের বাজার নিয়ন্ত্রনে সন্ধ্যায় অভিযানে নামে বাগেরহাট জেলা প্রশাসনের নিবার্হী ম্যাজিট্রেট মো. রাহাত উজ জামানের নের্তৃত্বে ভ্রম্যমান আদালত।

ভ্রম্যমান আদালত বাজার পরিদর্শনে আসলে লবণ কিনতে আসা লোকজনের ভীড় দ্রæত কমতে থাকে। একই সাথে বাগেরহাট বাজারে লবণ সংকটের গুজব ছড়িয়ে পড়ার খবর পেয়ে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সরদার নাসির উদ্দিনও বাজারে ছুটে আসে। তিনি, দোকানীদের জনপ্রতি ১ কেজির উপর লবন না বেচঁতে বলেন। এসময়ে ভ্রম্যমান আদালতের বিচারক জেলা প্রশাসনের নিবার্হী ম্যাজিট্রেট মো. রাহাত উজ জামান বেশী দামে লবণ বিক্রির দায়ে খোকন সাহা নামে এক দোকানীকে ২ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ৭ দিনের কারাদন্ড প্রদান করেন।

বাগেরহাটের প্রধান বাজারসহ বিভিন্ন হাট-বাজারে খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, লবণ সংকটের গুজব ছড়িয়ে পড়লে সন্ধ্যার আগেই অধিকাংশ দোকানের লবণ বিক্রি হয়ে যায়। গ্রামগুরোর হাট-বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের লবণ কেজি প্রতি ৫০ থেকে একশত টাকা দরে বিক্রি হবার খবর পাওয়া গেছে।

সন্ধ্যায় বাগেরহাট বাজারে শাহীন ও শরীফা বেগম নামে দুজনকে ২০ কেজি করে লবণ কিনে বাসায় ফিরতে দেখা গেছে। তারা জানান, পেয়াজের মতো লবণের দাম বেড়ে গেছে এমন খবর পেয়ে তারা দ্রুত বাজারে এসে দোকানীরা একটু বেশী দাম হলেও লবণ কিনতে পেরেছেন।