‘বাদশাহ ও যুবরাজ দায়ী, অন্য কেউ নয়’ (ভিডিও)

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:১৮ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১৮:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮

ইয়েমেনে দীর্ঘদিন ধরে হামলার কারণে বারবার সমালোচনার মুখে পড়েছে সৌদি আরব। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন থেকে শুরু করে জাতিসংঘ; এমনকি সৌদি রাজপরিবারের মধ্যেও এ নিয়ে বিরোধ রয়েছে।

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের দমনে সৌদি জোট কয়েক বছর ধরে হামলা অব্যাহত রেখেছে। ফলে দারিদ্র্যপীড়িত দেশটিতে ভয়াবহ বিপর্যয় সৃষ্টি হয়েছে।

সর্বশেষ গত মাসের শেষ সপ্তাহে সৌদি জোটের বিমান হামলায় একটি স্কুলের ৪০ শিশুর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় বিশ্বব্যাপী ব্যাপক সমালোচনা দেখা দেয়।

তারই জের ধরে কয়েক দিন আগে লন্ডনে বিক্ষোভ করে একদল মানুষ। সেখানে সৌদি বাদশার ভাই আহমেদ বিন আব্দুল আজিজের বাড়ির সামলে জড়ো হয়ে রাজপরিবারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে বিক্ষোভকারীরা।

এ সময় আহমেদ বিন আব্দুল আজিজ বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আল সৌদ পরিবারকে নিয়ে এসব বলছেন কেন? এর সঙ্গে পুরো রাজপরিবারের যোগসূত্র কী? নির্দিষ্ট কয়েকজন ব্যক্তি এজন্য দায়ী…বাদশাহ আর যুবরাজ। অন্য কাউকে এর সঙ্গে জড়াবেন না’।

সৌদি বাদশাহর ভাইয়ের এমন মন্তব্যসংবলিত ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যমে। দ্রুতই সেটি ভাইরাল হয়। সমালোচনার সম্মুখীন হয় সৌদি বাদশাহ ও তার পুত্র যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান।

পরে পরিস্থিতি সামাল দিতে সৌদির রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থায় আহমেদ বিন আব্দুল আজিজকে উদ্ধৃত করে খবর প্রকাশ করে। ওই খবরে বলা হয়, রাজপুত্র বাদশাহকে সমালোচনা করেছেন বলে যেসব বর্ণনা করা হচ্ছে তা ‘ভুল’।

কিন্তু আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে আহমেদ বিন আব্দুল আজিজের ঘনিষ্ঠজনদের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, নিজের বক্তব্যে অটল রয়েছেন তিনি। সৌদি রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থায় প্রচারিত বিবৃতিকে ভুয়া আখ্যা দিয়ে বলা হয় ওই খবরে রাজপুত্রের নামে যে উদ্ধৃতি প্রকাশ হয়েছে তিনি সেসব মন্তব্য করেননি।

এই পরিস্থিতিতে নিজ দেশে না ফেরার বিষয়টি আহমেদ বিন আব্দুল আজিজ বিবেচনা করছেন। দেশে ফিরলে তাকে হয়রানি করা হতে পারে এমন আশঙ্কায় স্বেচ্ছায় নির্বাসনে থাকতে পারেন তিনি।