বায়তুল মোকাররমে হবে পাঁচ জামাত

প্রকাশিত: ১:২৪ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২০ | আপডেট: ১:২৪:অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২০

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এবার ভিন্ন আবহে ঈদ উদযাপন করবে দেশের মুসলমানরা। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এবার ঈদগাহর পরিবর্তে শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে ঈদের জামাত।

রাজধানীতে এবার ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে সকাল ৭টায়। এরপর আরো চারটি জামাত হবে সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা এবং পৌনে ১১টায়।

আগামীকাল সোমবার উক্ত জামাতসমূহে নিম্নোক্ত ব্যক্তিগণ ইমাম ও মুকাব্বির-এর দায়িত্ব পালন করবেন-

প্রথম জামাত

বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। এই জামাতে ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম ও হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। আর মুকাব্বির হিসেবে থাকবেন বায়তুল মোকাররমের মুয়াজ্জিন ও হাফেজ কারী কাজী মাসুদুর রহমান।

দ্বিতীয় জামাত

দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। ইমামতি করবেন হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী, পেশ ইমাম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ। মুকাব্বির হিসেবে থাকবেন হাফেজ কারী হাবিবুর রহমান মেশকাত, মুয়াজ্জিন, বায়তুল মোকাররম মসজিদ।

তৃতীয় জামাত

তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায়। ইমামতি করবেন হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক, পেশ ইমাম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ। মুকাব্বির হিসেবে আছেন মাওলানা ইসহাক, মুয়াজ্জিন, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ।

চতুর্থ জামাত

চতুর্থ জামাত সকাল ১০টায়। ইমামতি করবেন মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম, পেশ ইমাম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ। আর মুকাব্বির হিসেবে থাকবেন মো শহীদুল্লাহ, চীফ খাদেম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ।

পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত

পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১০টা ৪৫ মিনেটে অনুষ্ঠিত হবে। ইমামতি করবেন হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান, মুহাদ্দিস, ইসলামিক ফাউন্ডেশন। আর মুকাব্বির হিসেবে থাকবেন হাফেজ মো. আমির হোসেন, খাদেম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ।

তবে ওই পাঁচটি জামাতে কোনো ইমাম অনুপস্থিত থাকলে বিকল্প ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, মুফতি, ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

অন্যান্য মসজিদের মতো বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রেও ১৩ দফা শর্ত আরোপ করা হয়েছে।

এসব শর্তে বলা হয়েছে নামাজের সময় মসজিদে গালিচা বিছানো যাবে না; নামাজের আগে পুরো মসজিদ জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে; জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে মুসল্লিদের; সবাইকে মাস্ক পরতে হবে; মসজিদে প্রবেশের আগে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে; মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না; নামাজের কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

আগামীকাল সোমবার (২৫ মে) দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। গতকাল শনিবার (২৩ মে) শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় ঈদুল ফিতর উদযাপনের এই দিন চূড়ান্ত হয় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায়।