বিএনপির কার্যালয়ে মিলল ককটেল

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৩৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮

বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রোববার বিকেলে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভা শেষে দলীয় নেতাকর্মীরা স্থান ত্যাগ করার পর সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় তিনটি হাসুয়া, একটি ছোরা, দুটি ককটেল ও ৮-১০টি লাঠি পাওয়া যায়।

তবে এ ঘটনা ষড়যন্ত্রমূলক ও পরিকল্পিতভাবে পুলিশ সাজিয়েছে অভিযোগ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে উপজেলা বিএনপির নেতারা।

বিকেলে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবুল বাশারের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম-আহ্বায়ক আজিজুর রহমান বিদ্যুতের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক ইউনুস আলী খন্দকার, ফজলুল হক উজ্জল, ইদ্রিস আলী সাকিদার, তছলিম উদ্দিন, তমেজ উদ্দিন, হারেজ উদ্দিন, বজলুর রহমান নিলু, কোহিনুর আক্তার, জুলেখা বেগম, আতিকুর রহমান, বিএনপি নেতা মঞ্জুর কাদের মন্টু, মহসিন আলী, যুবদল নেতা আজমল হুদা সহিদ, আবু বক্কর সিদ্দিক রিপন, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা খায়রুজ্জামান জিয়া, যুবদল নেতা আজাদ ও নুর মাহমুদ প্রমুখ।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবুল বাশার বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা শেষে দলীয় নেতাকর্মীরা কার্যালয় থেকে চলে যায়। পরে পিয়নকে কার্যালয় থেকে বের করে দিয়ে তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। এরপর ষড়যন্ত্রমূলক ও পরিকল্পিতভাবে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে হাসুয়া, ককটেল পাওয়ার বিষয়টি দাবি করে পুলিশ। এই মিথ্যা নাটক সাজানোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই আমরা।

শাজাহানপুর থানা পুলিশের ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম বলেন, পুলিশ কখনো নাটক সাজায় না। ঘটনা যা ঘটেছে তাই বলা হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের আড়ালে বিএনপি নেতাকর্মীরা নাশকতা করবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে তল্লাশি চালানো হয়। সেখানে একটি হাসুয়া, একটি ছোরা ও দুটি ককটেল পাওয়া যায়।