বিকেলে ১২০ কিলোমিটার বেগে মুম্বাইয়ে আঘাত হানবে ‘নিসর্গ’

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৫১ অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০ | আপডেট: ১:৫১:অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০

বিকেলে ভারতের মহারাষ্ট্র ও গুজরাট উপকূলে ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ। এসময় বাতাসের সর্বোচ্চ বেগ হতে পারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত। এছাড়া, ঝড়ের প্রভাবে প্রবল বৃষ্টিপাত ও অন্তত ছয় ফুট উঁচু জলোচ্ছাসেরও আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় ইতোমধ্যেই মুম্বাই, রায়গড়, পালগড়, থানে, রত্নগিরি, সিন্ধুদুর্গ এলাকায় উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সকাল থেকেই বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া বিজ্ঞানী সুনিতা দেবী জানান, প্রবল আকার ধারণ করার পর প্রথমে কিছুটা দিক পরিবর্তন করে উত্তর দিকে ধাবিত হবে নিসর্গ। এরপর পুনরায় দিক পরিবর্তন করে উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে আসবে। এতে ঘূর্ণিঝড়টি বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ উত্তর মহারাষ্ট্রের হরিহরেশ্বর এবং দক্ষিণ গুজরাটের দামানের ভেতর দিয়ে মহারাষ্ট্রের রায়ঘাট জেলার আলিবাগের নিকট দিয়ে সমতলে ওঠে আসবে।

এ সময় ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্রে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত। উপকূলে তাণ্ডব চালিয়ে সমতলে উঠে আসতে প্রচুর শক্তিক্ষয় করবে ‘নিসর্গ’। এরপর বুধবার রাতেই এটি শক্তি হারিয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে।

মহারাষ্ট্র ও গুজরাটের উপকূলবর্তী সম্ভাব্য ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ৩০টি দল নামানো হয়েছে। প্রতিটি দলে রয়েছেন ৪৫ জন করে কর্মী। গুজরাটের তরফ থেকে অতিরিক্ত পাঁচটি দল পাঠানোর অনুরোধ করা হয়েছে। মহারাষ্ট্রে ১০টি দল পাঠানো হয়েছে ও ৬টি দল প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

আরব সাগরে সৃষ্টি হওয়া গভীর নিম্নচাপকে ঘূর্ণিঝড় ‘নিসর্গ’ নামটি দিয়েছে বাংলাদেশ। এ ঘূর্ণিঝড় বাংলাদেশে আঘাত হানবে না। তবে বাংলাদেশের আবহাওয়ায় এর প্রভাব পড়বে।