বিজেপি নেত্রীর গোপনাঙ্গে হাত, যা বললো আদালত!

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ৪:০০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

লকেট চট্টোপাধ্যায়ের শরীরের গোপনাঙ্গে হাত দিয়েছেন তিন পুলিশ অফিসার। তাদের মধ্যে দু’জন মহিলা এবং একজন পুরুষ পুলিশ অফিসার। এমনই অভিযোগে রাজ্য বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেন। অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন কলকাতা পুলিশের এক অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার। তবে কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, লকেটকে এই অভিযোগের ভিত্তিতে আইনি সুরাহা পেতে গেলে নিম্ন আদালতে আবেদন জানাতে হবে৷

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে কলকাতার ওয়াই চ্যানেলে বিজেপি মহিলা মোর্চার তরফে একটি প্রতিবাদ মিছিল হয়। শিলিগুড়ির ৯ বছরের একটি বালিকাকে ধর্ষণের প্রতিবাদে মহিলা মোর্চার সভাপতি লকেট চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে অবস্থান, প্রতিবাদ চলাকালীন লিপিকা ভট্টাচার্য, শুক্লা লোধ এবং ভূদেব ভট্টাচার্য তার চুলের মুঠি ধরেন এবং তার শরীরের গোপন স্থানে হাত দেন বলে অভিযোগ।

লকেট চট্টোপাধ্যায় এফআইআর করেন হেয়ার স্ট্রিট থানায়। কিন্তু পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় লকেট কলকাতা হাইকোর্টে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার মামলা করেন। এদিন বিচারপতি নাদিরা পাথেরিয়ার এজলাসে লকেটের আইনজীবী পার্থ ঘোষ বলেন, একজন সম্মানীয় মহিলাকে প্রকাশ্যে চুলের মুঠি ধরা হল, তার শরীরে হাত দেওয়া হল। অথচ পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিল না। কাউকে গ্রেফতার করাও হল না। কিন্তু সরকারি আইনজীবী অমিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, পুলিশ বিষয়টির অনুসন্ধান করেছে।

দু’পক্ষের সওয়াল-জবাব শুনে বিচারপতি নাদিরা পাথেরিয়া জানিয়ে দেন, লকেটকে নিম্ন আদালতে এ বিষয়ে আর্জি জানাতে হবে৷ নিম্ন আদালত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে। আইনজীবীদের বক্তব্য, লকেট চট্টোপাধ্যায়কে এখন ব্যাঙ্কশাল আদালতের দ্বারস্থ হতে হবে।