বিশ্বের প্রথম ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালু!

প্রকাশিত: ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৩৪:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৮

দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান হলো। বিশ্বের ‘প্রথম ফাইভজি নেটওয়ার্ক’ আজ থেকে কাজ শুরু করেছে।

তবে এখনি সবাই এই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে পারবেন না। শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্রের নির্দিষ্ট সংখ্যক অঞ্চলের কিছু মানুষ সুবিধাটি পাবেন।

ভেরাইজন জানায়, হিউস্টোন, ইন্ডিয়ানাপলিস, লস অ্যাঞ্জেলস এবং স্যাক্রিমেন্টো অঞ্চলের কিছু বাসিন্দা ‘ফাইভজি হোম সাবস্ক্রিপশনের’ এই সুবিধা পাবেন।

যদিও কিছুদিন আগে পরীক্ষামূলক ফাইভজি স্মার্টফোন বভ্যহার করা হয়েছে। তবে এটি ভেরাইজনের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপলক্ষ। প্রতিষ্ঠানটি মার্কিন প্রতিদ্বন্দ্বীগুলিকে বাণিজ্যিক ফাইভজিতে শুধু পরাজিতই করেনি, বিশ্বজুড়ে একক ইন্টারনেট সরবরাহকারী হিসেবেও ভেরাইজন আত্মপ্রকাশ করেছে।

তবে অবশ্যই ফাইভজির যে কাঙ্খিত গতি ও কাভারেজ তা পেতে আরও কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হবে। এখন থেকে শুধু সার্ভিসটা শুরু হলো। ভেরাইজন বাসাবাড়িতে ফাইভজির গতি ৩০০ এমবিপিএসে সীমাবদ্ধ রাখবে। সেটা কিছুদিনের মধ্যে তাদের কাজের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে বাড়াবে।

যারা ‘প্রথম ফাইভজি’র সদস্য হবেন তারা ৯০ দিনের ফ্রি সার্ভিস পাবেন। যেখানে অ্যাপল টিভি ফোরকে বা গুগল ক্রোমকাস্ট আল্ট্রা এবং তিন মাসের ফ্রি ইউটিউব সাবস্ক্রাইব সুযোগ পাবেন।

তিন মাস পর থেকে মাসিক ৭০ ডলার ফাইভজি হোম সাবস্ক্রিপশন চার্জ নেবে ভেরাইজন। আর ইতোমধ্যে ভেরাইজনের সদস্য হয়ে থাকলে সেটা ৫০ ডলার দিতে হবে। আর ফোন প্ল্যানের জন্য ৩০ ডলার হিসেবে মাসিক চার্জ ধরেছে ভেরাইজন।

এছাড়াও ২৪ ঘণ্টায় ভেরাইজন তাদের কাস্টমার সার্ভিস দেবে। লাইন বসানোর জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিসহ যে কোন প্রশ্নের উত্তর দেবে তারা।

ভেরাইজনের ওয়েবসাইটে ফাইভজি নিয়ে একটি আলাদা বিভাগও করা হয়েছে।

-টেকশহর।