বিশ্ব ইজতেমার মোনাজাত কাল সকাল ১০ টার মধ্যে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৩২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০ | আপডেট: ৭:৩৩:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০
ফাইল ছবি

শুক্রবার ফজর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে শুরায়ী নেজামের বিশ্ব ইজতেমা। তবে এর আগেই বৃহস্পতিবার বাদ ফজর থেকেই শুরু হয় তালিমি বয়ান। রবিবার (১২ জানুয়ারি) মোনাজাতের মাধ্যমে আলমী শূরার তাবলিগ জামাতের সাথীদের ইজতেমা শেষ হবে।

জানা গেছে, ১২ জানুয়ারি রোববার মোনাজাতের মাধ্যমে ২০২০ সালের বিশ্ব ইজতেমার শেষ হবে। এদিন সকাল সোয়া ৭ টায় মাওলানা রবিউল হকের হেদায়েতী বয়ান হবে এবং ১০ টার মধ্যে মোনাজাতের মাধ্যমে এবারের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে। মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইল তাবলিগ জামাতের মুরুব্বি ও কাকরাইল মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা জুবায়ের আহমেদ।

এদিকে, দেশ-বিদেশের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উপস্থিতিতে ইবাদত, বন্দেগী, জিকির-আসকার আর আল্লাহু আকবার ধ্বনিতে মুখর টঙ্গীর তুরাগপাড়ের বিশ্ব ইজতেমা ময়দান। ইজতেমার দ্বিতীয় দিন শনিবার সকাল থেকেই তুরাগ তীরের ইজতেমা মাঠে লাখ লাখ মুসল্লির উপস্থিতিতে চলছে পবিত্র কুরআন-হাদিসের আলোকে বয়ান।

গত ৩ দিন ধরে ইজতেমা মাঠে সার্বক্ষণিক ইবাদতে মগ্ন রয়েছেন দেশ-বিদেশের হাজার হাজার আলেম-ওলামা। প্রতিদিন ফজর থেকে এশা পর্যন্ত ইজতেমা মাঠে ঈমান, আমল, আখলাক ও দীনের পথে মেহনতের ওপর আম বয়ান করছেন তারা। কনকনে শীত উপেক্ষা করে ইজতেমা ময়দানে হাজারো আলেমের উপস্থিতি এ মজলিসের মাহাত্মকে শতগুণ বৃদ্ধি করে দিয়েছে।

লাখো মুসল্লি বয়ান, তাশকিল, তাসবিহ-তাহলিলে কাটাচ্ছেন। শনিবার বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে দেশ-বিদেশ থেকে আগত মুরুব্বিরা তাবলিগের ছয় উছুলের মধ্যে দাওয়াতে দীনের মেহনতের ওপর গুরুত্বারোপ করে বয়ান করছেন।

এদিকে ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উপস্থিতিতে ইবাদত, বন্দেগী, জিকির আর আল্লাহু আকবারের ধ্বনিতে মুখর টঙ্গীর তুরাগপাড়ের বিশ্ব ইজতেমা ময়দান। ইজতেমার দ্বিতীয় দিন শনিবার সকাল থেকেই তুরাগ তীরের ইজতেমা মাঠে লাখ লাখ মুসল্লির উপস্থিতিতে চলছে পবিত্র কুরআন-হাদিসের আলোকে বয়ান।

গত ৩ দিন ধরে ইজতেমা মাঠে সার্বক্ষণিক ইবাদতে মগ্ন রয়েছেন দেশ-বিদেশের হাজার হাজার আলেম-ওলামা। প্রতিদিন ফজর থেকে এশা পর্যন্ত ইজতেমা মাঠে ঈমান, আমল, আখলাক ও দীনের পথে মেহনতের ওপর আম বয়ান করছেন তারা। কনকনে শীত উপেক্ষা করে ইজতেমা ময়দানে হাজারো আলেমের উপস্থিতি এ মজলিসের মাহাত্মকে শতগুণ বৃদ্ধি করে দিয়েছে।