বিড়ির ওপর শুল্ক কমাতে শতাধিক সাংসদের ডিও লেটার

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০৩ অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০২০ | আপডেট: ১২:০৩:অপরাহ্ণ, জুন ৪, ২০২০

আসন্ন ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে বিড়ি শিল্পের উপর বিদ্যমান শুল্ক কমানোর সুপারিশ করে প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে আধা সরকারি পত্র (ডিও লেটার) দিয়েছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শতাধিক সংসদ সদস্য।

এছাড়াও উভয় দফতরে জেলা, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভা মেয়র ও জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ তিন শতাধিক অনুরোধ পত্র পাঠিয়েছে।

লক্ষ লক্ষ হত দরিদ্র শ্রমিকের জীবন-জীবিকার একমাত্র কর্মসংস্থান রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানকে এসব পত্র দিয়েছেন তারা। সংশিষ্ট দফতর থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিও লেটারে সংসদ সদস্যগণ উল্লেখ করেছেন, বিড়ি শিল্প দেশের একটি প্রাচীন শ্রমঘন কুটির শিল্প। এই শিল্প প্রতিষ্ঠান সরকারকে রাজস্ব প্রদানের মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখার পাশাপাশি হত দরিদ্র শ্রমিকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে।

মহান মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরে এ শিল্পটি চালু হয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত বিড়ি ফ্যাক্টরীগুলোতে অধিকাংশ শ্রমিকই নারী।

এই নারী শ্রমিকদের বেশিরভাগ বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, বয়স্ক এবং প্রতিবন্ধী। অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের ফলে বিড়ি ফ্যাক্টরীগুলো বন্ধ হয়ে গেলে এসব শ্রমিক বেকার হয়ে পড়বে।

এছাড়াও বর্তমান মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে থাকা বিড়ি ফ্যাক্টরীগুলো বন্ধ হয়ে পড়ে। ফলে শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়েছে।

এসব শ্রমিকদের কর্ম বন্ধ থাকলেও থেমে নেই জীবন যাত্রার চাহিদা। লক্ষ লক্ষ শ্রমিকদের ভরণ পোষণের দায়িত্ব বিড়ি মালিকদের নিতে হচ্ছে।

দেশের লাখ লাখ গ্রামীণ দরিদ্র বিড়ি শ্রমিকদের জীবন জীবিকার স্বার্থে আগামী ২০২০-২১ অর্থ বছরের বাজেটে বিড়ির ওপর শুল্ক বৃদ্ধি না করে শুল্ক কমানোর সুপারিশ করছি।

এই তালিকায় রয়েছে, কিশোরগঞ্জ -০৩ আসনের সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু, সভাপতি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি, বরগুনা-০১ আসনের সাংসদ ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, সভাপতি মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্তণালয়, নওগাঁ-০৩ আসনের সাংসদ মো: ছলিম উদ্দীন তরফদার, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য, নীলফামারী -০৪ আসনের সাংসদ আহসান আদেলুর রহমান, বরিশাল-০৬ আসনের সংসদ সদস্য নাসরিন জাহার রতœা, কুড়িগ্রাম-০৩ আসনের সাংসদ এম এ মতিন, ঢাকা-০৪ আসনের সাংসদ আবু হোসেন বাবলা, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নজরুল ইসলাম, পঞ্চগড় তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মাহবুবুর রহমান ডাবলু, জয়পুরহাট ক্ষেতলাল উপজেলা চেয়ারম্যান মো: মোস্তাকিম মন্ডল, বগুড়া ধুনট পৌরসভাপর মেয়র এজিএম বাদশাহ, দিনাজপুর ঘোড়াঘাট পৌরসভার মেয়র মো: আব্দুস সাত্তার মিলন, রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: মোজাম্মেল হক মিন্টু মিয়া প্রমুখ।

এদিকে বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করে বিড়ি উৎপাদন ও বিক্রয় বন্ধ না করাসহ আগামী বাজেটে বিড়ি শিল্পের ওপর শুল্ক কমানোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন।

গতমাস থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন, বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছে এসব শ্রমিকরা।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাদের দাবি বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করে কোনভাবে বিড়ি বন্ধ করা যাবে না। সেজন্য বিড়ির উপর শুল্ক কমিয়ে এ শিল্পকে বাঁচানোর দাবি তাদের।