বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধার হাতে পড়ানো হল হ্যান্ডকাপ!

প্রকাশিত: ৫:৫৭ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৫৭:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৮

আব্দুল্লাহ আল মানছুর, চৌদ্দগ্রাম: কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া দাতামায় বাবা মায়ের কবর জিয়ারত শেষে কুমিল্লা ফেরার পথে নিজ গ্রামে পুলিশের হাতে আটক হন বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আক্তারুজ্জামান।

এলাকাবাসীর তথ্য মতে জানা যায়- চৌদ্দগ্রাম উপজেলার দাতামা গ্রামের (পশ্চিম পাড়ার) মৃত. আলতাফ আলীর পুত্র গেজেটে অর্ন্তভুক্ত বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আক্তারুজ্জামান তাহার কুমিল্লার রাজগঞ্জ বাসা হতে শুক্রবার সকাল ৭টায় তাহার পৈতৃক গ্রামের বাড়ি দাতামায় আসেন। গ্রামের বাড়ি এসে প্রথমে তিনি তাহার বাবা ও মায়ের পারিবারিক কবর জিয়ারত করেন।

কবর জিয়ারত শেষে বীরমুক্তিযোদ্ধ মো: আক্তারুজ্জামান তাহার পাশের বাড়ির মামাতে ভাই মৃত.আনছার আলীর ঘরে নাস্তা করার জন্য যান, মামাতো ভাই মৃত.আনছার আলীর ঘরে প্রবেশ করার সাথে সাথে চৌদ্দগ্রাম সার্কেল এএসপি ও থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শুভ রঞ্জন চাকমা তাহার সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে মামাতো ভাই মৃত আনছার আলীর ঘরে প্রবেশ করে বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আক্তারুজ্জামান, দুই ভাগিনা জামাল হোসেন বাছির (৩৫), ডা: মোতাহের হোসেন (৩৩) ও বিদ্যালয়ের শিক্ষক হারিছুল হক (৫০) কে আটক করে চৌদ্দগ্রাম থানায় নিয়ে আসে । বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আক্তারুজ্জামানকে আটকের পর চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশের হেফাজতে শারীরিক ও মানসিক ভাবে অমানবিক নির্যাতন চালায়, যাহা বাংলাদেশের ইতিহাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানের উপর চরম ভাবে আঘাত হানে। বীরমুক্তিযোদ্ধা মো: আক্তারুজ্জামানের উপর এ নির্মম শারীরিক নির্যাতনের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।