বেনাপোলে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দাকে মারপিটের ঘটনায় চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে মামলা

শহিদ জয় শহিদ জয়

যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮:৩০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১ | আপডেট: ৮:৩০:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১

যশোরের বেনাপোলে আন্তর্জাতিক চেকপোষ্ট দিয়ে চোরাচালানে বাঁধা দেওয়ায় কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার এক সদস্যকে মারপিটের ঘটনায় বেনাপোল থানায় মামলা হয়েছে।

এসময় জব্দকৃত মালামালও ছিনিয়ে নেয় চোরাচালানীরা। মারপিটের ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। অপরাধীরা রয়েছে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে দুই চোরাচালানীর নাম উল্লেখ করে বেনাপোল পোর্টথানায় এ মামলা দায়ের করেন শুল্ক গোয়েন্দা সদস্য মনিরুল ইসলাম।এর আগে সোমবার বিকালে বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের সামনে সাদিপুর মোড়ে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলাকারীরা হলেন,বেনাপোল পৌরসভার বড়আঁচড়া গ্রামের জোহার ছেলে ইউছুপ আলি (৩২)ও দীন মোহাম্মদের ছেলে আব্দুল আজিজ (৪৫)।

আহত শুল্ক গোয়েন্দা সদস্য মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ব্যবহার করে চোরাচালানী পণ্য আনা হবে’ গোপন এমন সংবাদ পেয়ে বিষয়টি আমরা নজরদারিতে রাখি।

এসময় বিকাল ৪টা ২৫মিনিটে সিসি ক্যামেরায় দেখতে পাই সোর্স হিসাবে পরিচিত কয়েকজন চোরাচালানী পন্য নিয়ে দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করছে।

প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের সামনে সাদিপুর মোড়ে তাদের গতিরোধ করলে আজিজ ও ইউছুফ নামে চিহ্নিত দুই চোরাচালানী আমাকে মারধোর করে মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়।

বিষয়টি আমি কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে সাথেই অবহিত করি।

বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার সহকারী পরিচালক শেখ মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান জানান, চোরাচালানে বাঁধা দেওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। সিসি ক্যামেরা দেখে অপরাধী সনাক্ত করেই মামলা করা হয়েছে।

বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের সহকারি উপপরিদর্শক(এএসআই) আতিয়ার রহমান বলেন,কাস্টমস শুল্কগোয়েন্দা সদস্য মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে থানায় মামলা করেছেন। অপরাধীদের ধরতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে