ব্যয়বহুল চিকিৎসার কথা শুনে সন্তান রেখেই পালাল মা-বাবা!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৮ | আপডেট: ১:৪৫:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৮

কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালে গর্ভকালীন ছাব্বিশ সপ্তাহের পর ভূমিষ্ট এক অপরিপক্ক ছেলে শিশুর ব্যয়বহুল চিকিৎসার কথা জানতে পেরে তার মা-বাবা শিশুটিকে ফেলে পালিয়ে গেছে। ছেলে শিশুটিকে বাঁচাতে এখন রাখা হয়েছে হাসপাতালটির নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে (ইনকিউবিউটর)। এ বয়সের শিশুটি বেঁচে থাকার কথা না থাকলেও নিবিড় পরিচর্যায় বেঁচে আছে সে। ধীরে ধীরে সে বেড়ে উঠছে। জন্মের চৌদ্দ দিন পেরিয়ে গেলেও মা-বাবা আর সন্তান নিতে ফিরে আসেনি।

মা ও শিশু স্পেশালাইজড হসপিটালের ইনচার্জ ডা. মেহেদী হাসান জানান, চলতি মাসের ১৮ তারিখে মাত্র ছয় মাসের এক গর্ভবতী অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে আসে। ঐদিনই ভূমিষ্ট হয় একটি শিশু। যার ওজন মাত্র সাতশ’ গ্রাম। সাধারণত এ বয়সের শিশুর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম। শিশুটিকে বাঁচাতে রাখা হয় নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে।

মা ও শিশু স্পেশালাইজড হসপিটালের সহকারী ব্যবস্থাপনা পরিচালক বদিউল আলম চৌধুরী জানান, ভর্তি হওয়ার ছয় দিনের মাথায় ব্যয়বহুল চিকিৎসার কথা জানতে পেরে কৌশলে পালিয়ে যায় গর্ভধারিনী মা ও তার বাবা। বহু চেষ্টা করেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের আর খোঁজ পায়নি। ভর্তির সময়ে দম্পতির বাড়ি চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বলে জানিয়েছিল। এদিকে সে থেকে শিশুটি পরিচর্যা ইউনিটে থাকায় প্রতিদিন তার পেছনে খরচ হচ্ছে ১৫ হাজার টাকারও বেশী। শিশুটির বাবা মাকে খুঁজে পেতে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা. মজিবুর রহমান জানান, যদি অভিভাবক খুঁজে না পাওয়া যায় তাহলে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে সহযোগিতা করা হবে।