ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের বিল বেশি নিলে যেভাবে অভিযোগ করবেন

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৪৮ অপরাহ্ণ, জুন ৯, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪৮:অপরাহ্ণ, জুন ৯, ২০২১

দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সেবা নিয়ে একপ্রকার ‘নৈরাজ্য’ চলছে। নির্দিষ্ট কোনো নীতিমালা না থাকায় কোম্পানিগুলো যে যার মতো টাকা আদায় করছে গ্রাহকের কাছে। কোথায়ও সংযোগ ফি নেওয়া হয়, আবার কোথায় নেওয়া হয় না। মাসিক ফি নিয়ে তারতম্য আছে শহর ও গ্রামের মধ্যে।

বিষয়গুলোর সুরাহা করে সারাদেশে এক রেটের আওতায় নিয়ে আনা হচ্ছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটকে। ‘এক দেশ, এক রেটের’ আওতায় প্যাকেজগুলোর জন্য যে পরিমাণ অর্থ নির্ধারণ করে দিয়েছে, তার বেশি নিলে অভিযোগ জানাতে পারবেন গ্রাহকেরা।

যদি কোনো ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান মাসিক বিল সরকার ঘোষিত দামে না নেয়, ঘোষিত গতি না দেয় তাহলে তিনি টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থায় অভিযোগ জানাতে পারবেন। শুধু ঢাকা শহর নয়, প্রত্যন্ত এলাকার একজন গ্রাহকও যদি আইএসপি’র দেওয়া প্রতিশ্রুত গতি না পান তাহলে তিনি অভিযোগ জানাতে পারবেন।

বিটিআরসি হটলাইন ১০০ নম্বরে ফোন করে টেলিকম ও সেবা নিয়ে অভিযোগ জানানো যাবে।

এ ছাড়া বিটিআরসির এই লিংকে http://btrc.isslcrm.com/ComplainManagement ঢুকেও অভিযোগ জানানো যাবে।

ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির সভাপতি আমিনুল হাকিম জানিয়েছেন, গ্রাহক ঘোষিত গতি, নির্ধারিত দামে ইন্টারনেট সেবা না পেলে আইএসপিএবিকেও অভিযোগ জানাতে পারবেন। [email protected] মেইলে আইডিতে অভিযোগ জানালে সংগঠনটি গ্রাহকের সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেবে।

গ্রাহকদের জন্য সরকার তিনটি স্তর ঠিক করে দিয়েছে। ৫ এমবিপিএস ৫০০, ১০ এমবিপিএস ৮০০ ও ২০ এমবিপিএস এক হাজার ২০০ টাকা। ঘোষণার দিন (৬ জুন) থেকে এই নতুন নিয়ম কার্যকর হয়েছে।

ঢাকার কোনো গ্রাহক মাসে ১০ এমবিপিএস (মেগাবিটস পার সেকেন্ড) ব্যবহারের জন্য বিল দেন মাসে ১ হাজার টাকা। জুন মাসের বিল (জুলাই মাসে যেটা পাওয়া যাবে) দেওয়ার সময় তিনি পরিশোধ করবেন ৮০০ টাকা। যারা ৮০০ টাকারও কম দিতেন তাদেরটা সমন্বয় করা হবে বলে জানা গেছে।