বয়স্কদের আগে যুবকদের টিকা প্রদান, প্রশ্নের মুখে ইন্দোনেশিয়া

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:০৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১ | আপডেট: ৭:০৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানিসহ বিশ্বের যে দেশগুলোতে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হয়েছে, সেখানে সবার আগে বয়স্ক মানুষদের এটি দেয়া হচ্ছে। কিন্তু এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম ইন্দোনেশিয়া। তারা সবার আগে যুবকদের শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করছে।

টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে শুরুতেই তরুণদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। প্রশ্নের মুখে পড়েছে দেশটির সরকারের এই নীতি। সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার খবরে এমনটি জানানো হয়েছে।

বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, করোনায় যেহেতু বয়োজ্যেষ্ঠরা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকে, সেখানে তরুণদের অগ্রাধিকার দিয়ে পরিস্থিতির উন্নতি ঘটানো যাবে না।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে আজ বুধবার থেকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হয়েছে, যা আগামী মার্চ মাসের শেষ অবধি চলবে। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে বয়স্কদের এই টিকা দেয়া হবে না।

প্রথম পর্যায়ে মোট ১.৩ মিলিয়ন চিকিৎসক-নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। এরপর আরো ১৭.৪ মিলিয়ন মানুষকে ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনা হবে। যার মধ্যে রয়েছে পুলিশ, সেনা সদস্য, শিক্ষক এবং সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী। সবশেষে তা দেয়া হবে শ্রমজীবী মানুষদের। বয়স্করা এই ধাপে পাবে না।

এ বিষয়ে ইন্দোনেশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ডা. নাদিয়া ওয়াইকো বলেন, প্রবীণদের পরিবর্তে বয়সে অপেক্ষাকৃত কম তরুণ ও যুবকদের (১৮ থেকে ৫৯ বছর) ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনার জন্য টার্গেট করা হয়েছে। আর ৬০ বছর কিংবা তারও অধিক বয়স্ক লোকেদের জন্য ভ্যাকসিন নিরাপদ কি না- তা এখনো বিপিওএমে (ইন্দোনেশিয়ার ড্রাগ ও খাদ্য নিয়ন্ত্রণ সংস্থা) পর্যালোচনা চলছে।

দেশটির অনেক নাগরিকই সরকারের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছেন। তারা বলছেন, যেহেতু ইন্দোনেশিয়ার প্রবীণ ব্যক্তিরা বেশিরভাগ বাড়িতে থাকেন, তাই কর্মজীবী মানুষের তুলনায় তাদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। তাছাড়া কম বয়সী লোকেদের আগে টিকা দেয়া হলে, তারা বয়স্ক ব্যক্তিদের নিরাপদে রাখতে পারবে।

তবে বিশেষজ্ঞরা এটির সমালোচনা করছেন। তারা বলছেন, প্রবীণদের টিকা দেয়া উচিত নয় বলে ইন্দোনেশিয়া সরকার যে যুক্তি দেখিয়েছে, সেটি গ্রহণযোগ্য নয়। কারণ, বয়স্কদেরই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। তাই সবার আগে প্রথম সারির স্বাস্থ্য কর্মী এবং তার পর বয়স্কদের টিকা দেয়া উচিত।

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মেডিকেল জার্নাল দ্য ল্যানসেটে প্রকাশিত সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, বয়স্ক ব্যক্তিরা, বিশেষ করে যারা দুর্বল বা দীর্ঘমেয়াদী বিভিন্ন রোগে ভুগছেন, তারাই ভাইরাসটিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।