ভারতজুড়ে নেটফ্লিক্স নিষিদ্ধের দাবি জানালো কট্টর হিন্দু সংগঠন

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৩৩:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯

হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ উঠল জনপ্রিয় ওয়েব চ্যানেল নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে। নেটফ্লিক্সে দেখানো বেশ কয়েকটি ওয়েব সিরিজে হিন্দু ধর্মকে বিকৃত করার অভিযোগ তুলেছে হিন্দু জনজাগরুতি সমিতি। আর তাই ভারতে নেটফ্লিক্স নিষিদ্ধ করার দাবি তুলল ওই হিন্দু সংগঠন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, শুক্রবার পানাজি থানার সাইবার ক্রাইম বিভাগে নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে হিন্দু জনজাগরুতি সমিতির পক্ষ থেকে। তাদের মূল অভিযোগ, নেটফ্লিক্সে হিন্দুধর্ম এবং ভারতীয় সংস্কৃতিকে নেতিবাচকভাবে দেখানো হচ্ছে। তাঁদের দাবি, ভারতীয় রীতিনীতির তোয়াক্কা না করেই যাচ্ছেতাই দেখানো হচ্ছে ওয়েব সিরিজগুলোতে।

অভিযোগের তীর মূলত নেটফ্লিক্সের ৩টি ওয়েব সিরিজের দিকে। এগুলো হলো ‘ল্যায়লা’, ‘সেক্রেড গেমস’ এবং ‘ফায়ার’। দর্শকদের কাছে এই ওয়েব সিরিজগুলো বেশ জনপ্রিয়, অতএব এগুলোর কন্টেন্ট দেখে মানুষের মনে অনেক ভুল ধারণার সৃষ্টি হচ্ছে- এমন অভিযোগই তুলেছে হিন্দু জনজাগরুতি সমিতি। এগুলো সরাসরি ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করছে এবং ভারতীয় সংস্কৃতিকে নেতিবাচক আলোকে তুলে ধরছে- এ মর্মে অভিযোগ দায়ের হয়েছে পানাজি থানায়।

এখানেই শেষ নয়। এমনকি, এই কট্টরপন্থী হিন্দু সংগঠনটি নেটফ্লিক্সকে ভারতে নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়ে মুম্বাই পুলিশ কমিশনার এবং কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ জানিয়েছে।

নেটফ্লিক্সের বিরুদ্ধে অভিযোগ অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগেও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ এনে জনপ্রিয় এই ওয়েব চ্যানেল নেটফ্লিক্সকে নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছিলেন শিবসেনার এক নেতা।

এই প্রসঙ্গে হিন্দু জনজাগরুতি সমিতির মুখপাত্র সতীশ কোচরেকর বলেন, ‘নেটফ্লিক্স’-এ হিন্দুধর্মকে হিংসাত্মক এবং ভারতীয় সংস্কৃতিকে অশ্লীলভাবে উপস্থাপিত করা হচ্ছে। এর ফলে বিশ্বে ভারতীয় সংস্কৃতি এবং হিন্দুদের সম্পর্কে একটা নেতিবাচক মনোভাব গড়ে উঠছে। এই গোটা বিষয়টির নেপথ্যে একটা গভীর চক্রান্ত কাজ করছে। তাই নেটফ্লিক্স নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছি আমরা।