ভারতে গণপিটুনিতে নিহত বাংলাদেশীর লাশ হস্তান্তর

বিজিবি-বিএসএস পতাকা বৈঠক

আব্দুর রব আব্দুর রব

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:৪৫ অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০ | আপডেট: ৯:৪৫:অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০

অবশেষে ভারতে গণপিটুনিতে নিহত বাংলাদেশী যুবকের লাশ হস্তান্তর করেছে বিএসএফ। শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় বিয়ানীবাজারের সীমান্ত পিলার ১৩৬০ এর সন্নিকটে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে শেওলা নামক স্থানে বিজিবি-বিএসএফ কোম্পানী কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক শেষে বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের নিকট লাশ হস্তান্তর করেছে বিএসএফ।

পতাকা বৈঠকে বিজিবি’র পক্ষে নেতৃত্ব দেন বড়গ্রাম কোম্পানী কমান্ডার নায়েব সুবেদার মো. আলী আজগর এবং বিএসএফ’র পক্ষে নেতৃত্ব দেন সুতারকান্দি বিএসএফ’র কোম্পানী কমান্ডার ইন্সপেক্টর শ্রী বিষ্ণু কুমার। বৃহস্পতিবার বিকেলে বিএসএফ নিহত বাংলাদেশী রনজিৎ রিকমুনের লাশ হস্তান্তর করতে সুতারকান্দি আসে। কিন্তু করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন না থাকায় বিজিবি ও পুলিশ তার লাশ গ্রহণ করেনি।

জানা গেছে, ভারতের অভ্যন্তরে পুতনি নামক গ্রামে গত ১ জুন অবৈধ অনুপ্রবেশকালে গ্রামের স্থানীয় জনগণ গরুচোর সন্দেহে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার বড়ধামাই তাতীপাড়া গ্রামের রসিক লাল রিকমুনের ছেলে রনজিৎ রিকমুনকে পিটিয়ে হত্যা করে। ভারতের আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার পাথারকান্দি পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে হিমাগারে রাখে। বিজিবি নিহত বাংলাদেশী যুবকের লাশ ফিরিয়ে আনতে বিএসএফকে চিঠি পাঠায়।

বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল গাজী শহীদুল্লাহ শুক্রবার সন্ধ্যায় জানান, পতাকা বৈঠকের পর ভারতীয় পাথরকান্দি থানা পুলিশের নিকট হতে করোনা ভাইরাস নেগেটিভ সনদপত্র, এফআইআর কপি এবং ময়না তদন্ত রিপোর্ট সাপেক্ষে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ বাংলাদেশী নাগরিক রনজিৎ রিকমুনের লাশ গ্রহণ করেছে। নিহতের মায়ের আবেদনে বাংলাদেশে পুনরায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই তার মায়ের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়।