মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৪৯:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮

টিবিটি রাজনীতিঃবিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদকে নোয়াখালীতে তার নিজ বাড়িতে পুলিশ অবরুদ্ধ করে রেখেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নোয়াখালী জেলা বিএনপি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তোলা হয়।

শুক্রবার বিকেলে জেলা আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। মওদুদের বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ।

মওদুদ আহমদের গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মানিকপুরে। তার অভিযোগ, তার বাড়ির আশপাশে পুলিশের পাহারা থাকায় দলের নেতা-কর্মীরা তার সঙ্গে দেখা করতে আসতে পারছেন না। বৃহস্পতিবার তার সঙ্গে দেখা করতে আসার চেষ্টা করলে চর এলাহী ইউনিয়নের বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীকে পুলিশ আটক করে। বাড়িতে তিনি বন্দি অবস্থায় আছেন বলেন দাবি করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসি জানান, বৃহস্পতিবার থেকে বিএনপির প্রিয় নেতা মওদুদ আহমদ তার নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ। তিনি জানিয়েছেন, পুলিশ বলেছে তাকে বাড়ি থেকে বের হতে দেবে না। আমরা দীর্ঘদিন রাজনৈতিক সহঅবস্থানের সংস্কৃতি সৃষ্টি করেছি, সেখানে মওদুদ আহমদের মতো একজন সিনিয়র সিটিজেনকে অবরুদ্ধ করে রাখা হলো। এটা কোন গণতন্ত্রের নমুনা?

সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন, শুক্রবার মওদুদ আহমদের বাড়ি থেকে বিএনপির সাত নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এরা হলেন বসুরহাট পৌর বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম রিপন, চর এলাহী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবদুল ওহাব, গাংচিল ৯ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক খোকন, ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম সেলিম, আবুল কাশেম, ওমর ফারুক, চরপার্বতী ইউনিয়ন যুবদল নেতা নুর ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখা ও নেতাকর্মীদেরকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় নিন্দা জানানো হয়। এসময় বিএনপির জেলা সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, শহর সভাপতি আবু নাছের, সদর উপজেলা সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন খান, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখু, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান মো. নোমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মওদুদ আহমদের অভিযোগ সত্য নয় দাবি করে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ বলেন, সড়ক পরিবহন মন্ত্রীকে নিয়ে মওদুদ আহমদের বক্তব্যের কারণে এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ হয়। এসব কারণে নিরাপত্তার স্বার্থে মওদুদ আহমদের বাড়ির সামনে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।

মওদুদের বাড়ি থেকে নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হয়নি বলেও তিনি দাবি করেন। তিনি বলেন, শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট মামলা এবং নাশকতায় সম্পৃক্ততার অভিযোগ রয়েছে।

মওদুদের বক্তব্যের প্রতিবাদ আওয়ামী লীগের: মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখা সংক্রান্ত বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ। শুক্রবার বিকালে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবাদ জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল বলেন, মওদুদ সত্যকে পাশ কাটিয়ে সরকার, আওয়ামী লীগ ও জনপ্রিয় নেতা ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন।

তিনি বলেন, মূলত মওদুদ আহমদের উপস্থিতিতে তার বাড়িতে দলীয় নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এরপর মওদুদকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য তার বাড়ির সামনে অবস্থান নেয় পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের জেলা সহসভাপতি ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, উপজেলা সাধারণ সম্পাদক নুর নবী চৌধুরী, বসুরহাট পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি রেয়াজুল হক লিটন, সাধারণ সম্পাদক আবদুল খায়ের, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ছারওয়ার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহেদুর রহমান তুহিন, পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নাজমা আক্তার শিফা প্রমুখ।