মসজিদের ইমামতিকে কেন্দ্র করে বড়াইগ্রামে সংঘর্ষ, আহত ৭

প্রকাশিত: ৯:০৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০২১ | আপডেট: ৯:০৮:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০২১

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে মসজিদের ইমামতিকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সংঘর্ষে কমপক্ষে ৭ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বুধবার বিকালে উপজেলার মাঝগাঁও ইউনিয়নের ঢুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢুলিয়া গ্রাম প্রধান শুকচাঁদ আলী স্থানীয় পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদের নির্ধারিত ইমামকে নামাজ পড়াতে নিষেধ করে জোরপূর্বক নিজেই ইমামতি করা শুরু করেন। বুধবার যোহরের নামাজের সময় গ্রামের বাসিন্দারা এর প্রতিবাদ করেন এবং নির্ধারিত ইমামকে দিয়েই নামাজ পড়ান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিকালে মুসল্লীরা আসরের নামাজের প্রস্তুতি নেয়ার সময় শুকচাঁদের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা করে। এতে কমপক্ষে ৭ জন রক্তাক্ত জখম হন।

আহতদের মধ্যে কদমচিলান গ্রামের মোজাম্মেল হোসেন (৪৫), ঢুলিয়া গ্রামের আজিত প্রামাণিক (৫৫), মজির উদ্দিন (৬৫) ও কাওসার আহমেদ (২৬) কে বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া একই গ্রামের হাফিজুল ইসলাম (৩৫), আব্দুল হালিম (২৮) ও রাহয়ান আলী (৩৫) কে বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত শুকঁচাদ আলীর সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায় এবং তাকে এলাকায় পাওয়া যায়নি।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।