মসজিদ থেকে বের হতেই যুবলীগ নেতাকে এলোপাতাড়ি কোপ

প্রকাশিত: ৩:০০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১ | আপডেট: ৩:০০:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১

শরীয়তপুর সদর উপজেলার শৌলপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ও মালয়েশিয়া প্রবাসী দাদন খলিফা নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্থানীয় এসকান্দার সরদার ও তার সমর্থকরা পরিকল্পিত ভাবে তাকে হত্যা করেছে।

নিহত মো. দাদন খলিফা উপজেলার শৌলপাড়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের গয়ঘর গ্রামের সেকেন্দার খলিফার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূর্বশত্রুতার জের ধরে গয়ঘর গ্রামের ইদ্রিস খা’র সঙ্গে নিহত দাদনের বাবা সেকেন্দার খলিফার দ্বন্দ্ব চলে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গয়ঘর খলিফাকান্দি নুরুল হক খলিফার বাড়ির মসজিদে নামাজ পড়ে দাদন বের হলে পূর্বে ওঁৎ পেতে থাকা ইদ্রিস খা, এসকান্দার সরদারসহ ১০/১৫ জন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে দাদনকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যান। দাদনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দাদনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঢাকা নেয়ার পথে পোস্তগোলা এলাকায় দাদনের মৃত্যু হয়।

দাদন খলিফার বাবা সেকেন্দার খলিফা বলেন, ইদ্রিস খা’র নেতৃত্বে আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে। আমি হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।

শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আক্তার হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। হত্যার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে নেয়া হয়েছে।