মাত্র ১ বলের জন্য বিশ্বরেকর্ড হলো না পাক পেসারের

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১ | আপডেট: ৪:৫৭:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১

ইংলিশ কাউন্টিতে আগুন ঝরানো বোলিংয়ে আলোচনায় পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আব্বাস। হ্যাম্পশায়ারের হয়ে মিডলসেক্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি।

এমন দুর্দান্ত বোলিং কদাচিৎ দেখা মেলে। মাত্র ১৭ বল করে ৫ উইকেট শিকার করেছেন আব্বাস। এরমধ্যে একটি হ্যাটট্রিকও রয়েছে। এক ওভার মেডেন দিয়ে রান দিয়েছেন মাত্র ৩টি।

অর্থাৎ স্কোরবোর্ডে এই পাক পেসারের বোলিং ফিগার দেখাচ্ছিল ২.৫-১-৩-৫! এ কী বিশ্বাস করা যায়?

তবুও বিশ্বরেকর্ড হয়নি মাত্র এক বলের জন্য। রেকর্ডটি অক্ষুণ্ন রয়ে গেল।

দারুণ এই হ্যাটট্রিকে ওয়াকার ইউনুস, সাকলাইন মুশতাকদের পাশে নাম লিখিয়েছেন মোহাম্মদ আব্বাস।

একটা সময় ইংল্যান্ডের বাইরের ক্রিকেটারদের কাছে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ ছিল পরম আরাধ্য জায়গা। আর্থিক লাভের পাশাপাশি নিজেকে সমৃদ্ধ করা, ক্রিকেট স্কিল ও শৃঙ্খলার শিক্ষা, পেশাদারিত্ব, সবকিছুর শেখার আদর্শ ক্ষেত্র মনে করা হয় কাউন্টি ক্রিকেটকে। ২০০৮ সালে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট শুরুর পর ক্রিকেটারদের ভাবনায় বদল আসে। কাউন্টিতে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের পারফরমেন্স সবসময়ই উজ্জ্বল।

ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুস, সাকলাইন মুশতাকরা লম্বা সময় দাপট দেখিয়েছেন ইংলিশ ঘরোয়া ক্রিকেটে। ২০০৮ সাল থেকে দুইজনের জায়গায় একজন বিদেশি ক্রিকেটার নেয়ার নিয়ম করা হয়। আসায় কমে আসে পাকিস্তানিদের সুযোগও।

কাউন্টিতে লম্বা সময় পর দারুণ এক হ্যাটট্রিকে আলোচনায় মোহাম্মদ আব্বাস। একাদশ পাকিস্তানি হিসেবে কাউন্টিতে হ্যাটট্রিকের কৃতিত্ব দেখালেন তিনি। ২০০৯ সালে শেষবার পাকিস্তানি হিসেবে হ্যাটট্রিক করেছিলেন দানেশ কানেরিয়া। সাকলাইন মুশতাক ও ওয়াকার ইউনুসদের রয়েছে জোড়া হ্যাটট্রিক। ইমরান খান, ওয়াসিম আকরামের রয়েছে একটি করে হ্যাটট্রিক। মাজিদ খান, ইন্তিখাব আলম ও আসিফ মাহমুদ একবার করে এই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন।

শেষ পর্যন্ত আব্বাসের ১১ ওভারে ১১ রান দিয়ে ৬ উইকেট নিয়েছেন আব্বাস। মেডেন দিয়েছেন ৬টি!

এমন দুর্দান্ত স্পেল করেও রেকর্ডের খাতায় প্রথম হতে পারেননি আব্বাস।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সবচেয়ে কম বলের মধ্যে ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড রায়ান প্যাটেলের। ২০১৮ সালে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে সারের হয়ে সমারসেটের বিপক্ষে গিল্ডফোর্ডে ১১ বলে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। যেই বিশ্বরেকর্ড এখনও অক্ষুণ্ণ।

এই ম্যাচে আগে ব্যাট করে হ্যাম্পাশায়ার অলআউট হয়েছে ৩১৯ রান করে। আব্বাসের সঙ্গে দলের বাকিদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে মিডলসেক্সের প্রথম ইনিংস থেমেছে মাত্র ৭৯ রানে। ফলোঅনে পড়ে তারা আবার দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করছে।