মাত্র ৭ দিনেই কিলিমাঞ্জারো পর্বত জয় করে তাক লাগিয়ে দিল ৯ বছরের খুদে

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৪৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ৯:৪৮:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০১৯

মাত্র নয় বছর বয়স তার। এত কম বয়সের কোনও খুদে হয়তো মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো নামটাই শোনেনি। কিন্তু এই বয়সে আদভাইত ভারতিয়া এত ছোট বয়সে জয় করে ফেলল আফ্রিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি।

আফ্রিকার তানজানিয়ায় অবস্থিত মাউন্ট কিলিমাঞ্জারোর উচ্চতা ১৯ হাজার ৩৪১ ফুট। আদভাইতের পর্বত জয়ের তাগিদ আরও ছোট বয়স থেকে। এর আগে ছয় বছর বয়সে আদভাইত মাউন্ট এভারেস্টের বেস ক্যাম্প পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল।

পুনের বাসিন্দা আদভাইত গত ৩১ শে জুলাই মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো জয় করে বলে খবর। অদ্বৈত জানিয়েছে, এই অভিযান বেশ কঠিন ছিল। এভারেস্টের বেস ক্যাম্প অভিযানের সময় তারা কাঠের ঘরে থাকতে পারত। কিন্তু মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো অভিযানের সময় থাকতে হয়েছে তাঁবুতে, যা প্রবল ঠান্ডায় বেশ কষ্টকর। এ ছাড়াও, অভিযানের চড়াই ভাঙতে রীতিমতো বেগ পেতে হয়েছে তাকে।

তা হওয়ারই কথা। এই সময় মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো এলাকায় মাইনাস ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত নামে তাপমাত্রা। এত ঠান্ডা, তার উপর অক্সিজেনের অভাব। যদিও এ সবের কিছুই দমিয়ে দিতে পারেনি খুদে অদ্বৈতকে। বরং সে জানিয়েছে, সে চাইলে আরও আগেই কিলিমাঞ্জারো ছুঁয়ে ফেলতে পারত। কিন্তু চাঁদের পাহাড়ের অপরূপ সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে সে আরও কয়েকটা দিন কিলিমাঞ্জারোতে থাকতে চেয়েছিল।

তার বয়সী আর পাঁচটা ছেলে-মেয়ে যেখানে হয়তো মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো নামটাই শোনেনি, সেখানে সে সফল করে ফেলেছে অসম্ভবের অভিযান। অদ্বৈতর প্রশংসায় মুখর সারা দেশের পর্বত মহল।

অদ্বৈতর মা পায়েল ভারতীও ছেলের সঙ্গে রওনা দিয়েছিলেন কিলিমাঞ্জারোর উদ্দেশে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শিখরে পৌঁছতে পারেননি তিনি।