মানুষের ঘরে সাপ-কুমিরের বাস!

প্রকাশিত: ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৫৩:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০১৮

কেরালায় ভয়াবহ বন্যার পর থ্রিসুর জেলার চালাকুদি এলাকার এক বাসিন্দা চলে গিয়েছিলেন আশ্রয় শিবিরে। বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ফিরে এসে ঘরে কুমির দেখেন তিনি। পরে তার প্রতিবেশির সাহায্য নিয়ে কুমিরটিকে দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলে সেটিকে প্রতিরোধ করেন । এমন খবরই জানিয়েছে ভারতের গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

খবরটিতে আরও বলা হয়, গত সপ্তাহে কেরালার ভয়াবহ বন্যায় প্রায় ৪ শতাধিক মানুষ নিহত হন এবং দশ লক্ষাধিক মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়।

গত কয়েকদিন ধরে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে সেখানকার বন্যা পরিস্থিতি। আর এ কারণে বাড়িঘর ছেড়ে যাওয়া মানুষগুলো ফিরছে তাদের বাড়িঘরে তবে তাদের এই ফেরা সুখকর হচ্ছেনা মোটেও। বাড়িফেরা অনেকেই তাদের বাড়িঘরে দেখতে পাচ্ছেন সাপসহ অন্যান্য পোকামাকড়।

কেরালার মাল্লাপুরাম এলাকার মুস্তাফা নামে একজন জানান, তিনি তার বাড়ি থেকে কমপক্ষে ১০০ টি সাপ ধরেছে। মুস্তাফা বলেন, এটা খুবই স্বাভাবিক যখন বন্যা হয় তখন নদী এবং পুকুরে পানি বেশি হওয়ায় সাপ এবং অনান্য পোকামাকড় বাড়িতে এসে পড়ে। যারা বাড়িতে ফিরছে তাদের কোন জুতা ,ভাঙা টাইলস অথবা জ্বালানী কাঠের ভেতর হাত দেয়ার সময় তাদের সতর্ক থাকা উচিত ।

এরনাকুয়াম জেলার আঙ্গামালি এলাকার একটি হাসপাতাল থেকে জানানো হয়, তারা ৫২ জন সাপে কাটা রোগীকে চিকিৎসা করছে।

পাথানামথিতা এলাকা থেকে করা একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই এলাকার অনেকেই সাপ দেখে বাড়ি ছেড়ে আবার চলে গিয়েছেন। এদিকে সাপ পোকামাকড় দমনে কেরালায় পর্যাপ্ত পরিমাণে বিষ প্রতিরোধকারী ঔষধ দেয়া হয়েছে বলে কেরালা রাজ্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।