মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট, চাকরিচ্যুত ইমাম

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:০৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২১ | আপডেট: ৮:০৯:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২১

বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় বগুড়ার ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদের ইমামকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে মসজিদ পরিচালনা কমিটি। চাকরিচ্যুত ইমাম মুর্শিদুল ইসলামকে এর আগে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এবং মসজিদ কমিটির সভাপতি ডাঃ হাসানুল হাছিব স্বাক্ষরিত অব্যাহতির একটি চিঠি মঙ্গলবার দুপুরে ইমামের হাতে পৌঁছেছে।

জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদে ইমামতির সুবাদে মুর্শিদুল ইসলাম প্রায় ১২বছর ধরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোয়ার্টারে পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন। বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে নারী কেলেঙ্কারী নিয়ে ওই দিনই ইমাম মুর্শিদুল ইসলামের ফেসবুক আইডি থেকে মাওলানা মামুনুল হকের পক্ষে একটি পোস্ট দেয়া হয়।

পোস্টটি মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও সরকারী দলের নেতাকর্মীদের নজরে আসে। পরে বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিলে পরিস্থিতি মোকবেলায় ইমামকে সাময়িকভাবে চাকুরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে গত ১৮এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), মসজিদ কমিটির সকল সদস্য ও সরকারি দলের স্থানীয় নেতাকর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বৈঠক করে। বৈঠকে ইমাম মুর্শিদুল ইসলামকে চাকুরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ বিষয়ে ইমাম মুর্শিদুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেন, হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে হেনস্তা করার দৃশ্য দেখে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছিলাম। এতে সরকার বিরোধী কোন শব্দ ছিল না। পরবর্তীতে আমার ভুল বুঝতে পেরে ফেসবুক থেকে সেই পোস্ট ডিলিট করে মসজিদ কমিটির সদস্যদের কাছে ক্ষমা পার্থনা করেছিলাম। কিন্ত মসজিদ কমিটির সদস্যদেরা আমাকে ক্ষমা না করে চাকুরিচ্যুত করেছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হাসানুল হাছিব বলেন, মসজিদ কমিটির সদস্য, উপজেলা প্রশাসন ও সরকারি দলের নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইমাম মুর্শিদুল ইসলামকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। একই সাথে তাকে সরকারি বাসভবন ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে।