মিথ্যে মামলা আর হুমকি দিয়ে রাজা ফিশারি দখলের চেষ্টা

হৃদয় দেবনাথ হৃদয় দেবনাথ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১:১২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৯, ২০২০ | আপডেট: ১১:১২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৯, ২০২০

একের পর এক মিথ্যে ও সাজানো মামলা এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে শ্রীমঙ্গলের মতিগঞ্জ এলাকার প্রয়াত মাস্টার গোলাম মোস্তফা রাজা মিয়ার সমস্ত স্থাবর অস্থাবর সম্পদ দখল করে নেয়ার অভিযোগ ওঠেছে জনৈকা দেওয়ান নুরজাহান এর বিরুদ্ধে।

আজ রবিবার সকালে সাংবাদিকদের কাছে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন অভিযোগ করেন প্রয়াত মাস্টার গোলাম মোস্তফা রাজা মিয়ার ছেলে ব্রিটিশ নাগরিক মাষ্টার গোলাম মোরসালিন মোস্তফা। তিনি জানান, তার পিতা প্রয়াত মাষ্টার গোলাম মোস্তফা রাজা প্রয়াত মা ফরিদা কাওছার এবং তারা তিন ভাই এবং দুই বোনসহ লন্ডনে বসবাস করতেন। কিন্তু এক পর্যায়ে তার পিতা সদ্য প্রয়াত মাস্টার গোলাম মোস্তফা রাজা মাটির টানে নিজ দেশে কিছু করার জন্য বাংলাদেশে চলে আসেন।একপর্যায়ে শ্রীমঙ্গল উপজেলার মতিগঞ্জ এলাকায় তিনি এবং তার পিতার নামীয় জমিতে রাজা ফিশারিজ এন্ড হ্যাচারী নামে একটি প্রতিষ্টান গড়ে তুলেন, ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি মৌলভীবাজার জেলা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অত্যান্ত সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করছে। গোলাম মোরসালিন মোস্তফা অভিযোগ করেন সম্প্রতি আমি লন্ডন থেকে দেশে আসি।

আসার পর থেকেই আমি ও আমার ভাই বোনের উপর একের পর এক মিথ্যা মামলা এবং সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে হয়রানী করে যাচ্ছেন বানিয়াচং এলাকার মৃত দেওয়ান গোফরান মিয়ার মেয়ে জনৈকা দেওয়ান নুরজাহান রানী।তিনি জানান শুধু তাই নয় হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার, বড় বাজার এলাকায় তার বাবার ক্রয়কৃত বাড়িতে প্রবেশ করতে চাইলে জনৈকা দেওয়ান নুরজাহান রানী তার ভাই সহ সন্ত্রাসী বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করতে বাঁধা দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বর্তমানে গোলাম মোরসালিন মোস্তফা লন্ডন থেকে এসে স্বত্তাধীকারি ও পরিচালক হিসেবে তার বাবার সমস্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও স্থাবর অস্থাবর সম্পদ দেখাশুনা করছেন। বর্তমানে শ্রীমঙ্গল উপজেলার মতিগঞ্জ এলাকায় তার পিতার প্রতিষ্ঠা করা সনামধন্য প্রতিষ্ঠান রাজা ফিশারিজ এন্ড হ্যাচারীতেই বসবাস করেন।

কিন্তু জনৈকা দেওয়ান নুরজাহান রানী কর্তৃক মিথ্যা মামলা এবং ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে অনবরত হুমকি আসতে থাকায় ফিশারির শ্রমিকদের সাথে অনেকটাই প্রাণনাশের আতঙ্ক নিয়ে বসবাস করছেন বলেও জানান প্রয়াত মাস্টার গোলাম মোস্তফা রাজার উত্তরাধিকারী ছেলে ব্রিটিশ সিটিজেন মাষ্টার গোলাম মোরসালিন মোস্তফা। পূর্বের হামলার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি আরো বলেন সম্প্রতি লন্ডন থেকে আমার ভাই বোন সহ পরিবারের সকলে এসেছিলেন শ্রীমঙ্গলের ফিশারির বাসায়। কিন্তু সেই মহিলা হঠাৎ একদিন তার ভাই সহ অস্ত্রধারী ভাড়াটে সন্ত্রাসী নিয়ে এসে ফিশারিতে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে এ ঘটনায় ফিশারিতে কর্মরত অনেকেই আহত হয়। পরে শ্রীমঙ্গল থানায় আমরা মামলা দায়ের করি বলেও জানান তিনি। তিনি আরো জানান, ইতিমধ্যে তাকে প্রাননাশের হুমকি প্রদান করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অফিস সহ প্রশাসনের গুরুত্বপূণ দপ্তরকে বিষয়টি লিখিতভাবে অবহিত করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে দেওয়ান নুরজাহান বেগমের সেলফোনে ফোন দিয়ে সাংবাদিক পরিচয় দিলে তিনি কোনো কথা না বলেই ফোন কেটে দেন।তারপর একাধিকবার তার বক্তব্যের জন্য ফোন এবং মেসেজ দিয়েও কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল কমলগঞ্জ)সার্কেল মো আশরাফুজ্জান বলেন হামলা ভাঙচুরের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।আমরা তাদের সাথে কথা বলেছি।তদন্ত চলছে।তবে তিনি যদি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন আর সেজন্য ইন্ডিভিজুয়ালি নিরাপত্তা চান তবে সেক্ষেত্রে পুলিশ সুপার বরাবর আবেদন করতে হবে।