মিরাজের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখলেন সাইফুদ্দিন

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:০১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯ | আপডেট: ৭:০১:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯
সংগৃহীত

খেলা ছিল ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। কিন্তু পাখির চোখ দিয়ে তাকিয়ে ছিলেন রাজশাহী কিংসের মেহেদী মিরাজরা। প্রহর গুণছিলেন ঢাকার হারের।

কেননা ঢাকার হারেই যে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ষষ্ঠ আসরে টিকে থাকে তাদের শেষ চারের স্বপ্ন। সাইফুদ্দিনের দুর্দান্ত বোলিংয়ে বেঁচে থাকল তাদের স্বপ্ন। কুমিল্লার কাছে মাত্র এক রানে হেরে মাঠ ছাড়েন সাকিবরা।

বিপিএলে রংপুর রাইডার্স, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ও চিটাগং ভাইকিংস আগেই প্লে–অফ নিশ্চিত করেছে। রান রেটে এগিয়ে থেকে ১১ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে ৫ নম্বরে সাকিব আল হাসানের ঢাকা।

১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে এখন তালিকার চার নম্বরে আছে মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী। শেষ ম্যাচে ঢাকা জিতলে রান রেটের ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ চারে যাবে ঢাকা। আর হারলে রাজশাহী।

আজ শুক্রবার শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুপুর দুইটায় ম্যাচটায় শুরু হয়। সাপ্তাহিক ছুটির দিন ছিল তাই মিরপুরে দর্শক ছিল চোখে পড়ার মতো। স্টেডয়ামের গ্যালারি ছিল কাণায় কাণায় পূর্ণ।

কিন্তু টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দর্শকদের হতাশ করেন কুমিল্লার ব্যাটসম্যানরা। কুমিল্লার দেওয়া ১২৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ঢাকার ইনিংস থেমে যায় ১২৬ রানে।

রুবেল-সাকিবদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ১২৭ রান করে দলটি। সর্বোচ্চ ৩৮ রান আসে বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবালের ব্যাট থেকে। তামিম ছাড়া কুমিল্লার টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানই দেখা পাননি দুই অঙ্কের মুখ।

মাঝে শহীদ আফ্রিদির ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান। শেষ দিকে দুই টেল এন্ডার ব্যাটসম্যান ওহাব রিয়াজ-মেহেদী রান না করলে ১০০ রানের আগেই গুটিয়ে যেত কুমিল্লা। মেহেদী ২০ ও ওহাব রিয়াজ ১৬ রান করেন।

সর্বোচ্চ চার উইকেট নিয়েছেন রুবেল হোসেন। চার ওভারে মাত্র ৩০ রান দিয়ে তি এই উইকেট শিকার করেন। সাকিব আল হাসান নেন চার ওভারে ২৩ রান দিয়ে দুই উইকেট।
Add Image
টার্গেটে খেলতে নেমে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে ঢাকা। ২৯ রানেই হারিয়ে ফেলে চার উইকেট। ঢাকার তিন ক্যারিবীয় তারকা রাসেল-পোলার্ড-নারাইন ছাড়া এদিন কারো ব্যাট হাসেনি।

রাসেল শেষ পর্যন্ত ক্রিজে থাকলেও দলকে জেতাতে পারেননি। সর্বোচ্চ ৩৪ রান আসে পোলার্ডের ব্যাট থেকে। নারাইন আউট হন ২০ রান করে। ৩০ রান করে অপরাজিত থাকেন আন্দ্রে রাসেল।

দুর্দান্ত বোলিং করে অবিশ্বাস্যভবে ম্যাচ জেতান কুমিল্লার সাইফুদ্দিন। চার ওভারে মাত্র ২২ রান দিয়ে নেন চার উইকেট। দুটি করে উইকেট নেন মেহেদী হাসান। একটি করে উইকেট নিয়ে কুমিল্লার জয়ে সহায়তা করেন ওহাব রিয়াজ, মোশাররফ ও আফ্রিদি।