মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক আমজাদ হোসেন আর নেই

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৯ | আপডেট: ৮:৪০:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০১৯

মুক্তিযুদ্ধের ছাত্র বিষয়ক অন্যতম সংগঠক, ১৯৭০-৭১ এ শেরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি, ছাত্রলীগের বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর এবং বর্তমান সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি আমজাদ হোসেন (৭৮) আর নেই।

শনিবার (৩১ আগস্ট) রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে ও ২ মেয়ে রেখে গেছেন। তার ১ ছেলে ও ১ মেয়ে আমেরিকা প্রবাসী।

শেরপুর শহরের শীতলপুর জন্মগ্রহণকারী আমজাদ হোসেন ছিলেন সদালাপি ও স্পষ্টভাষী। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি একজন সফল ব্যবসায়ী ছিলেন। এছাড়াও তিনি সমাজসেবামূলক বিভিন্ন কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন। শেরপুর পৌরসভার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন শেরপুর চেম্বার অব কমার্সের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন। মুক্তিযুদ্ধ, স্বৈরাচার বিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং সাধারণ মানুষের অধিকার আদায়ে তিনি সব সময় সোচ্চার ছিলেন।

স্বাধীনতা পূর্ববর্তী সময়ে তিনি অবিভক্ত জামালপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি যুবলীগ, শেরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও রোটারী ক্লাব এবং রেডক্রিসেন্ট, জেলা মিল মালিকের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

এছাড়া তিনি বিভিন্ন সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি তার নিজ বাড়ী শীতলপুরে কলিম উদ্দীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শেরপুর সরকারি কলেজ, শেরপুর মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি বর্তমানে জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্ঠা কমিটির সদস্য এবং সাংবাদিক বিপ্লবী রবি নিয়োগী সভাকক্ষ পরিচালনা পর্ষদের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। সদালাপী, স্বচ্ছতা এই মানুষটির মৃত্যুতে শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জাতীয় সংসদের হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক এমপি, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পাল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমাযুন কবির রুমান, শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ছানুয়অর হোসেন ছানু, পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, শেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি মাহমুদুল হক রুবেল, জেলা জাতীয় পার্টি সভাপতি মো. ইলিয়াছ উদ্দীনসহ বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করেছেন।