মুম্বাই হামলার জন্য সর্বোচ্চ পদক দাবি!

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০২০ | আপডেট: ৯:০২:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০২০

সাম্প্রতিক ইতিহাসে ভারতে সবচেয়ে বড় জঙ্গি হামলা হয়েছে ২০০৮ সালে। মুম্বাইয়ের ওই ঘটনা ২৬/১১ নামে পরিচিত। ওই হামলায় ১৬৬ জন সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছিলেন। এতে পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠী লস্কর এর ১০ জন সদস্য অংশ নেন। যাদের মধ্যে অন্যতম বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারে বন্দি থাকা তাহাউর রানা।

ওই হামলার ঘটনায় জড়িত থাকার জন্য তিনি পাকিস্তানের সর্বোচ্চ সামরিক পদক দাবি করেছেন। একই সঙ্গে হামলায় অংশ নেয়া বাকি সদস্যদেরও পদক পাওয়া উচিত বলে দাবি পাকিস্তান বংশোদ্ভূত এই কানাডিয়ান ব্যবসায়ীর। অবশ্য হামলার পর পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছিল নয় লস্কর জঙ্গি।

ডয়চে ভেলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুম্বাই হামলার ঘটনায় যুক্ত থাকার অপরাধে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তাহাউর রানার হেফাজত দাবি করেছে ভারত। আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

২৬/১১ নামে পরিচিত নামে পরিচিত মুম্বাই হামলা

২৬/১১ হামলায় যুক্ত থাকার অপরাধে ২০০৯ সালে ডেভিড কোলম্যান হেডলি নামের এক মার্কিন নাগরিকও গ্রেপ্তার হয়েছেন। আদালতে দোষ স্বীকার করে নেয়ায় তিনি আপাতত যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারে ৩৫ বছরের সাজা ভোগ করছেন। তারও হেফাজত দাবি করেছে ভারত।

অভিযোগ ওঠে, হেডলি একটি সংস্থার প্রতিনিধি হিসেবে ভারতে আসেন। এরপর বিভিন্ন স্থানের ছবি তুলে এবং লস্কর নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে মুম্বাই হামলার সম্পূর্ণ পরিকল্পনা ও ছক তৈরি করেছিলেন। তার পার্টনার ছিলেন তাহাউর রানা। যার প্রমাণ মেলে দুজনের এক টেলিফোন কলে। সেখানে হেডলি রানাকে বলেছিলেন, এই হামলার মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালের বদলা নেয়া হবে। আর তাতে সায় দেন রানা।

আর যেই সংস্থার প্রতিনিধি হিসেবে হেডলি ভারতে এসেছিলেন, সেটি তাহাউর রানার কোম্পানি এবং হেডলির অনুপস্থিতিতে রানাই পাকিস্তানের লস্কর নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন।

মার্কিন আদালতে আইনজীবীরা দাবি করেছেন, তাদের হাতে হেডলি এবং রানার টেলিফোন আলাপের সেই টেপটি রয়েছে। ওই ফোনালাপেই রানা পাকিস্তানের সর্বোচ্চ সামরিক পদক দাবি করেছিলেন।