মুসলিম দেশের সঙ্গে ইসরাইলের নৌমহড়া!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৫৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ৪:৫৬:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০১৮

বিশ্বের সবচেয়ে বড় নৌমহড়া রিমপ্যাকে অংশ নিয়েছে ইসরায়েল। তাদের সঙ্গে ছিলো বেশকিছু মুসলিম দেশও। কূটনৈতিক সম্পর্ক না থাকলেও ইসরায়েলি সেনাদের পাশাপাশিই মহড়ায় ছিলো মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও ব্রুনাইয়ের মতো মুসলিম রাষ্ট্রগুলো।

প্রতি দু’বছর পর পর রিমপ্যাকের এই মহড়ার আয়োজন করা হয়। এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় নৌমহড়া। চলতি বছর ২৬টি দেশ থেকে ২৫ হাজার সেনা এতে অংশ নিয়েছে। ছিলো ৪৭টি যুদ্ধজাহাজ, ২০০টি বিমান ও পাঁচটি সাবমেরিন। যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই ও প্রশান্ত মহাসাগরে এ্ই মহড়ার আয়োজন করা হয়।

ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম ইয়েদিয়োহ আহরোনোথ জানায়, ইসরায়েলের শীর্ষ কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তা এই মহড়ায় যোগ দেন।

নৌবাহিনীর মেজর র‌্যান স্টিগম্যান বলেন, ‘আমরা যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, চিলি, পেরু, অস্ট্রেলিয়া, ব্রুনাই, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডের সেনাদের সঙ্গে মহড়ায় অংশ নেই।

সামরিক বিশেষজ্ঞ ইউভ জিতুন বলেন, রিমপ্যাক নামে এই মহড়াটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় নৌমহড়া। ইরানের মতো হুমকির প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে এই মহড়ার আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, প্রথবারের মতো এই মহড়ায় অংশ নিয়েছে ইসরায়েল। যেসব দেশের সঙ্গে ইসরায়েলের কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই তাদের সেনাদের সঙ্গে পাশাপাশিই মহড়ায় অংশ নিয়েছে ইসরায়েলি সেনারা।

জিতুন বলেন, মার্কিন সামরিক বাহিনীর নৌঘাটি পার্ল হারবার থেকে ইসরায়েলের অংশগ্রহণের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছিলো। তিনি বলেন, নৌপথে আন্তর্জাতিক কোনও হামলা হতে পারে সেটি মাথায় রেখেই এই মহড়ার আয়োজন।