মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর জামায়াত সম্পৃক্তার প্রমাণ দিলেন শামীম ওসমান

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৫৬:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৯

নারায়ণগঞ্জে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তার বাবা প্রয়াত আলী আহাম্মদ চুনকার সঙ্গে জামায়াতের সম্পর্ক প্রমাণে এবার রেজিস্ট্রি দলিল ও ফাঁস হওয়া অডিওর কথা জানালেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডস্থ নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে (নম পার্ক) ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি একটি রেজিস্ট্রি দলিল হাতে নিয়ে তা সবাইকে দেখান।

শামীম ওসমান বলেন, ৭৫’র পর বঙ্গবন্ধুর রক্তের দাগ মুছেনি, তখনই প্রয়াত আলী আহাম্মদ চুনকা আদমজী ঝুট মিলের জমি দখল করে জামায়াত নেতার কাছে বিক্রি করেন। সেই আমলে ১০ হাজার টাকায় জমিটি বিক্রি করেন। আর নারায়ণগঞ্জের জামায়াতের আমিরের ফাঁস হওয়া অডিও রেকর্ডে জানতে পারি মেয়র আইভী জামায়াতের লোক। জমির দলিল যদি সত্যি হয়ে থাকে তাহলে জামায়াতের আমিরের অডিও রেকর্ডও সত্যি।

তিনি আরও বলেন, গত বছর নারায়ণগঞ্জ জামায়াতের আমির মাওলানা মাঈনউদ্দিন আহমদ নাশকতার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিলেন। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জামায়াতের আমির সাহেব যে স্বীকারোক্তি দিয়েছিলেন সেই সব কথাবার্তার রেকর্ড কিছু সাহসী সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রকাশ হয়েছিল। সেখানে জামায়াতের আমিরের বক্তব্যে উঠে এসেছে- ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর নারায়ণগঞ্জে যখন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাকর্মী জেলাখানায়, বাড়িঘরে থাকতে পারেনি, তখন মেয়র আইভীর বাবা মরহুম আলী আহাম্মদ চুনকা সাহেব রাজাকারদের নেতা দেলোয়ার হোসেন সাঈদী ও আলবদর প্রধান মাওলানা আলী আহসান মুজাহিদকে নিয়ে নারায়ণগঞ্জে মিটিং করতেন।

শামীম ওসমান বলেন, আলী আহাম্মদ চুনকা সাহেব আদমজীর অফিসারদের জায়গা দখল করে নিয়েছিলেন এবং আলী আহসান মুজাহিদের সঙ্গে মিলে মাত্র ১০ হাজার টাকা মূল্যে ১৯৭৬ সালে বিক্রি করে দিয়েছিলেন আদর্শ স্কুলের জন্য। তারই কন্যা নারায়ণগঞ্জের জামায়াতের লোক তার প্রমাণ অডিও রেকর্ড।

দলিল প্রদর্শন করে তিনি বলেন, আদর্শ স্কুলের প্রিন্সিপাল ছিলেন আল বদর প্রধান যুদ্ধাপরাধী আলী আহসান মুজাহিদ, যে আদর্শ স্কুলে এক সময় শহীদ মিনার ছিল না, যেখানে অস্ত্রের ট্রেনিংও দেয়া হতো, যে আদর্শ স্কুলকে জামায়াত-শিবির গড়ার কারখানা বলা হতো। ফাঁসি হওয়া রাজাকার মুজাহিদের স্ত্রী ছিল আইভীর বান্ধবী। মুজাহিদ যখন জেলে মুজাহিদের ফাঁসির দাবিতে যখন পুরো দেশ উত্তাল, মুজাহিদের ছেলে-মেয়েরা যখন জন্ম নিবন্ধন পাচ্ছিল না তখন মুজাহিদের স্ত্রীর অনুরোধেই আইভী রাজাকার মুজাহিদের স্ত্রী ও সন্তানদের জন্মনিবন্ধন করে দিয়েছিল।

শামীম ওসমান বলেন, জামায়াত নেতা মইনউদ্দিন সাহেব বলেছিলেন- আইভীর সঙ্গে বেগম খালেদা জিয়ার যোগাযোগ ছিল এবং এই আইভী বিএনপিতে যোগ দিতে গিয়েছিল কিন্তু জামায়াত চায়নি বলে আইভী বিএনপিতে যোগ দিতে পারেনি। কারণ শামীম ওসমানকে ঠেকানোর ক্ষমতা বিএনপি-জামায়াতের নেই। তাই আইভীকে আওয়ামী লীগে থেকেই শামীম ওসমানকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে হবে, কারণ শামীম ওসমানকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারা মানে আওয়ামীলীগকে ক্ষতিগ্রস্ত করা। যেটা আইভী বিএনপিতে গিয়ে পারবে না।

মাইনুদ্দিন আরও বলেছিলেন- আইভীর মধ্যে কৃতজ্ঞতা বোধ আছে কারণ সে জামায়াতের সব কাজ করে দেয়। বেগম জিয়ার সঙ্গে আইভীর সমঝোতা ছিল নির্বাচনের পর সে বিএনপিতে যোগ দিবে তাই আইভীকে জয়ী করতে সমস্ত শ্রম ও আর্থিকভাবে সাহায্য করেছিল।

২০১৮ সালে নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার ইস্যু নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীসহ অনেকে আহত হয়েছিলেন। ওই ঘটনার দীর্ঘ ২২ মাস পর মেয়র আইভীকে হত্যার উদ্দেশে হামলার অভিযোগ এনে গত বুধবার (০৪ ডিসেম্বর) শামীম ওসমানের অনুসারী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ নিয়ে ফের উত্তপ্ত হয়েছে উঠছে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি।