মোদির ওয়েবসাইটে পৌনে ৬ লাখ মানুষের তথ্য চুরি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | আপডেট: ৯:২২:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট (narendramodi.in) থেকে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষের তথ্য চুরি হয়েছে। ‘সাইবেল’ নামে এক মার্কিন সাইবার সুরক্ষা সংস্থার পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হয়েছে।

চুরি হওয়া তথ্যের মধ্যে রয়েছে, বিভিন্ন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর নানা তহবিলে অনুদান দেয়া দু’লাখের বেশি মানুষের ফোন নম্বর, ইমেল আইডির মতো নানা ব্যক্তিগত তথ্য। যার মধ্যে করোনা ত্রাণে অনুদান জমা দেয়া ব্যক্তিদের তথ্যও ছিলো। এই সব তথ্য ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে বলে ওই সংস্থাটি জানিয়েছে।

এসব তথ্য ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে মোদির পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।

একমাসেরও কম সময় আগে নরেন্দ্র মোদির টুইটার একাউন্ট বেহাত হয়েছিল। ওই অ্যাকাউন্টের সঙ্গে মোদীর ওয়েবসাইটটি লিঙ্ক করা। সাইবেল গত শুক্রবার একটি ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে দাবি করেছে, মোদীর ওয়েবসাইট হ্যাক করে ৫ লাখ ৭৪ হাজারের বেশি মানুষের তথ্য চুরি হয়েছে।

এর মধ্যে নাম, ইমেল আইডি, যোগাযোগের তথ্য রয়েছে। এ ছাড়াও মোদীর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যাঁরা প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিলে অর্থ দান করেছেন এমন ২ লাখ ৯২ হাজারের বেশি মানুষের তথ্য চুরি হয়ে ডার্ক ওয়েবে বিক্রি হয়ে গিয়েছে বলেও সাইবেলের দাবি।

ডার্ক ওয়েব হল এক গোপন নেটওয়ার্ক। বিশ্বের বহু সাইবার অপরাধের মাধ্যম এটি। ব্লু হোয়েলের মতো সুইসাইড গেম চলত ডার্ক ওয়েবেই। সাধারণ সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সেখানে থাকা তথ্যের হদিশ পাওয়া যায় না। এ ক্ষেত্রেও চুরি যাওয়া তথ্য কোনও অপারধামূলক কাজে ব্যবহার করা হতেই পারে বলে আশঙ্কা করেছে সাইবেল।

সাইবেলের দাবি, ডার্ক ওয়েবে তথ্য চলে যাওয়ার বিষয়টি গত ১০ অক্টোবর প্রাথমিক ভাবে নজরে আসে তাদের। এর পরেই তথ্য বিশ্লেষণ করে এ বিষয়ে নিশ্চিত হয় তারা। ভারতের সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত বিষয়ে পর্যবেক্ষণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইন্ডিয়ান কম্পিউটার ইমারজেন্সি রেসপন্স টিম (সিইআরটি-ইন)-কেও বিষয়টি জানিয়েছে বলেও সংস্থার ব্লগে দাবি করা হয়েছে।