মোস্তাফিজের প্রশংসায় বাংলায় টুইট রাজস্থানের

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:০৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১ | আপডেট: ৩:০৪:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২১

প্রথম ম্যাচে তার বোলিং ছিল হতাশাজনক। হেরেছিল দলও। পরের ম্যাচেই উল্টে গেল মুদ্রার পিঠ। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে মোস্তাফিজুর রহমান চলতি আইপিএলে নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পেলেন। ক্রিস মরিসের আগ্রাসী ইনিংসে নাটকীয়ভাবে জিতল রাজস্থান রয়্যালসও।

প্রথম ম্যাচে নিষ্প্রভ থাকায় পরের ম্যাচে আর তাকে মাঠে নামানো হবে কিনা তা নিয়ে ছিল সংশয়। কিন্তু দলের মূল পেসার আরচার এবং পেস অলরাউন্ডার স্টোকসের অনুপস্থিতিতে দ্বিতীয় ম্যাচেও সুযোগ পেলেন মোস্তাফিজ। আর সুযোগ পেয়েই প্রথম ওভারেই ভেলকি দেখান এ বাঁহাতি পেসার।

পাওয়ার-প্লে শেষে সপ্তম ওভারটি করতে মোস্তাফিজের হাতে বল তুলে দেন সঞ্জু স্যামসন। নিজের প্রথম ওভারে একের পর এক স্লোয়ার দিয়ে মাকুর্স স্টইনিসকে পরাস্ত করেন মোস্তাফিজ।

মোস্তাফিজের শর্ট লেন্থের প্রথম বলটি কোনোমতে কভারে ঠেলে দিয়ে এক রান নেন পন্ত। বাকি ৫ বলে আর স্ট্রাইক রোটেট করতে পারেননি দুই ব্যাটসম্যান। পর পর তিনটি বল ডট দেন মোস্তাফিজ। ওভারের পঞ্চম বলটি আউটসাইড এজ হয়ে স্টাম্পের পাশ কেটে বেরিয়ে যেতে থাকলে ডিফেন্ড করার চেষ্টা করেন স্টইনিস। কিন্তু পুরোপুরি ব্যর্থ হন। তার ব্যাটকে ছুঁয়ে সোজা চলে যায় উইকেটরক্ষক জস বাটলারের গ্লাভসে।

সব মিলিয়ে ৬ বলে ১ রান দিয়ে ১ উইকেট শিকার করেন মোস্তাফিজ।

প্রথম উইকেট পাওয়ার পরই বাংলায় টুইট করে রাজস্থান রয়্যালস। তাদের টুইটে লেখা হয়— ‘পয়লা তে পয়লা, এই তো চাই’।

দিল্লির বিপক্ষে মোস্তাফিজ নিজের দ্বিতীয় উইকেটটি নেন নিজের চতুর্থ ওভারে। শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে টম কারানের স্টাম্প ভাঙেন এই কাটার মাস্টার।

উনাদকাত ও মোস্তাফিজের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ১৪৭ রানের বেশি করতে পারেনি দিল্লি ক্যাপিটালস।

দ. আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট ডেভিড মিলারের ৬২ রানের পর শেষ ২ ওভারে ক্রিস মরিসের ৪ ছক্কায় ম্যাচ জিতে নেয় রাজস্থান।

ম্যাচশেষে দলকে অভিনন্দন জানাতে ভোলেননি মোস্তাফিজ। জয়ের নায়ক ক্রিস মরিসকেও অভিনন্দন জানান কাটার মাস্টার।