যশোরে বিএনপির ৩২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল

শহিদ জয় শহিদ জয়

যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:২৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৯, ২০১৯ | আপডেট: ৯:২৬:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৯, ২০১৯
যশোর জেলা

যশোরের শার্শা উপজেলার বিএনপির ৩২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট জমাদিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্তরা হলেন, কালিয়ানী গ্রামের রিপন হোসেন, ইউনুছ আলী, রায়হান শেখ, সেতাই গ্রামের নয়ন কবির, আশিকুজ্জামান শাওন, জাবির হোসেন, হরিশচন্দ্রপুর গ্রামের আশানুর জামান, জিয়াউর রহমান, বসতপুরের নজরুল ইসলাম।

এছাড়াও দক্ষিন বুরুজ বাগান এলাকার ওয়াসী উদ্দিন, জিয়া, আল মামুন বাবলু, বাগুড়ী গ্রামের আক্তারুজ্জামান, কাজীর বেড় এলাকার রুহুল কুদ্দুস কটা, সাইদুজ্জামান, বাগআচড়া গ্রামের শরীফ উদ্দিন সোহাগ, গোকর্ণ এলাকার সিদ্দিকুর রহমান, মকবুল হোসেন, রামচন্দ্রপুর গ্রামের আহসান হাবীব খোকন, শ্যামলাগাছী গ্রামের শাহান, মোস্তফা কামাল মিন্টু,

কালীয়ানী গ্রামের জাহাঙ্গির হোসেন, মহিষাকুড়া গ্রামের শাহাবাজ আলী, শফিকুর রহমান, ইদ্রিস আলী, বাগডাঙা গ্রামের মশিয়ার রহমান গোলদার, রহিত আলী, আমলাই গ্রামের আলতাফ হোসেন, দক্ষিন রাঘবপুর গ্রামের ওসমান আলী গাজী, মহিষা উত্তরপাড়া গ্রামের শাহাব উদ্দিন, ধান্যতাড়া গ্রামের ইমানুর রহমান ও বহিলাপোতা গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেন লিটন।

মামলার তদন্ত শেষে তদন্ত কর্মকর্তা শার্শা থানার উপ পুলিশ পরিদর্শক আবুল হোসেন আদালতে এ চার্জশিট জমাদেন। একই সাথে মামলার অভিযোগের সাথে সর্ম্পৃক্ততার প্রমান না পাওয়ায় তেবাড়িয়া গ্রামের রুমি, বাগাডাঙার রাজ্জাক, কায়বা গ্রামের কাউসার আলী ও একই গ্রামের মোহাম্মদ মাসুদকে এ মামলা থেকে অব্যহতির আবেদন জানানো হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে শার্শার গোগা বাজার এলাকার গোগা কালিয়ানী আলিম মাদ্রাসায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল করতে নাশকতা প্রস্ততি নেয়া হচ্ছে। ওই দিন সন্ধায় ওই মাঠে পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় আটজনকে আটক করে পুলিশ।

অন্যরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পাঁচটি ককটেল সহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করে। এঘটনায় বাগআঁচড়া তদন্ত কেন্দ্রর এস আই আব্দুর রহিম হাওলাদার বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে আদালতে এ চার্জশীট জমা দেন।