‘রহস্যময় লেখা’ফাঁস দেয়া যুবকের বুকে-লুঙ্গিতে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৩৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৩৪:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮

টিবিটি দেশজুড়েঃ বগুড়ার শাজাহানপুরে শিবলু মিয়া (৩২) নামে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের বুকে ও লুঙ্গিতে ‘অস্পষ্ট’ কিছু লেখা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার খোট্টাপোড়া ইউনিয়নের জুজখোলা গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে শোয়ার ঘরের তীরের সাথে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

শিবলু মিয়া বগুড়ার ধুনট উপজেলার বিলচাপড়ি গ্রামের মো. শাহাদৎ হোসেনের ছেলে। তিনি স্ত্রীসহ জুসখোলা গ্রামে তার শ্বশুর বাড়িতে থাকতেন।

নিহতের স্ত্রী রোকসানা আক্তার জানান, রবিবার রাতে খাবার খেয়ে স্বামীসহ একসঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোররাতে ঘরের তীরের সঙ্গে স্বামী শিবলুর ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার দেন।

নিহত শিবলু মিয়ার ভাই শামীম আহমেদ ও বোন রোজিনা আক্তার জানান, প্রায় দেড় বছর আগে শাজাহানপুর উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউনিয়নের জুসখোলা গ্রামে রুহুল আমিনের মেয়ে রোকসানার সঙ্গে শিবলুর বিয়ে হয়।

তাদের অভিযোগ, বিয়ের আগে শান্ত নামে এক ছেলের সঙ্গে রোকসানার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের পরেও তাদের নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। রোকসানা ধুনটে স্বামীর বাড়িতে থাকতে রাজি না হওয়ায় প্রায় চার মাস যাবৎ স্ত্রীকে নিয়ে শাজাহানপুরে তার শ্বশুর বাড়িতে থাকতো শিবলু।

শামীম ও রোজিনার দাবি, রোকসানার পরকীয়ার সম্পর্কের জের ধরেই শিবলুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। শিবলুর বুকে ও গালে আঁচড়ানোর দাগ রয়েছে এবং তার পায়েও ক্ষত রয়েছে। আবার শিবলুর বুকে এবং লুঙ্গিতে লেখা আছে আমার মৃত্যুর জন্য রোকসানা দায়ি।

শাজাহানপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর কবীর সাংবাদিকদের জানান, নিহতের বুকে ও লুঙ্গিতে অস্পষ্টভাবে কিছু লেখা রয়েছে। বিশেষজ্ঞ দিয়ে লেখাগুলো পরীক্ষা করা হবে। নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি আরও জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত হত্যা না আত্মহত্যা কিছুই বলা যাচ্ছে না।