রাজনৈতিক জনসভায় আকস্মিক হিরো আলম, সেলফির হুড়োহুড়ি!

প্রকাশিত: ২:৩৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ | আপডেট: ২:৩৯:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮

শনিবার সকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন চত্বরে একটি রাজনৈতিক দলের যৌথসভা চলছিল। দলটির নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে যৌথসভাটি জনসভায় রুপ নেয়। দলটির চেয়ারম্যান, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সংসদ সদস্য সহ শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা সভার মঞ্চে উপস্থিত হন। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন নেতাদের বক্তব্য শুরু হয়।

বেলা ১১টায় মঞ্চের পাশে নেতাকর্মীদের ভিড়ে আকস্মিকভাবে দেখা যায় হিরো আলম খ্যাত আশরাফুল হোসেন আলমকে। জনসভায় হিরো আলমকে দেখেই শতশত নেতাকর্মীরা ছুটে এসে মোবাইলে সেলফি তুলতে হুরোহুরি-ঠেলাঠেলি শুরু করে। রাজনৈতিক জনসভায় হিরো আলমকে দেখে উপস্থিত নেতাকর্মীর মুখে ছিল গুঞ্জনের ছড়াছড়ি। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আলোচনায় আসা হিরো আলম দেশের গন্ডি পেরিয়ে বলিউডের ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া থেকে প্রার্থী হবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। বর্তমানে সংসদ নির্বাচনে ঘিরে হিরো আলম রয়েছেন ব্যাপক আলোচনায়। সমালোচনাও চলছে।

সূত্রমতে, রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির যৌথসভা চলছিল। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতি পুরো এলাকা জনসভায় রুপ নেয়। আগামী সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে মঞ্চে বক্তব্য দিচ্ছিলেন দলটির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। মঞ্চের সামনে নেতাকর্মীদের ঢল ছিল। জাপা চেয়ারম্যানের বক্তব্যের পরপরই ভিড়ের মধ্যে দেখা যায় হিরো আলমকে। তিনি সভাস্থল থেকে বের হতে চেষ্টা করলে নেতাকর্মীরা ঘিরে ফেলে। শুরু হয় সেলফির হুরোহুরি। সরাসরি কাছে পেয়ে হিরো আলমের সাথে সেলফির সুযোগে বেশ আনন্দিত ছিলেন জেলাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। একজনের পরের আরেকজন, এভাবে সেলফি চলে প্রায় একঘন্টা। তবুও বিরক্তিবোধ করেননি হিরো আলম। কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মীর সাথে সভাস্থল থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ করেন সদ্য বলিউডে সুযোগপ্রাপ্ত এই হিরো।

গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতার বিষয় নিয়ে কথা বলছিলেন হিরো আলম। ১০ মিনিটের মাথায় আবারো সেলফির কবলে পড়েন তিনি। জাপা নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আসা শতশত ভক্তের সাথে কথা বলেন আশরাফুল হোসেন আলম। এসময় বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মী হিরো আলমকে নানা প্রশ্ন করতে থাকেন। তিনি তো জাতীয় পার্টির নেতা নন, কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে এমপি নির্বাচনের খবর চলছে। তবে কি এই জনসভায় আসার মাধ্যমে হিরো আলম জাতীয় পার্টির প্রার্থী হচ্ছেন? এমন প্রশ্ন ছিল প্রায় সকলের মুখেই।

উত্তরে হিরো আলম বলেন, দুইবার নিজ এলাকায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। এমপি নির্বাচন অবশ্যই করব। তবে কোন দলের হয়ে করবো সেটা সময় হলেই বলবো। একথা বলেই নিজেকে মুঠোফোনে ব্যস্ত দেখিয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে হাঁটতে দেখা যায় তাকে। আকস্মিকভাবে এসেছিলেন হিরো আলম, চলেও যান আকস্মিক ভাবেই।

-সময়ের কণ্ঠস্বর।