‘রাজনৈতিক বক্তব্য দিলে খালেদার মুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে পারবে সরকার’

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০ | আপডেট: ৭:১৯:অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০
বেগম খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি

বিএনপি চেয়ারপারসন সাবকে প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, তিনি(খালেদা জিয়া) যদি কোনো রাজনৈতিক বক্তব্য দেন বা রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নেন তবে তার মুক্তির শর্ত ভঙ্গ হবে। তার শর্ত ভঙ্গ করলেই সরকার যেকোনো সময় তার মুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে পারবে। আর যদি শর্ত ভঙ্গ না করেন এবং সরকার তার মুক্তির মেয়াদ না বাড়ায় তবে তিনি ছয়মাস পর আগের অবস্থায় ফিরে যাবেন।

বুধবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

মাহবুবে আলম বলেন, সরকার চাইলে খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করতে পারে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ছয় মাসের জন্য খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার বিকেলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সংবাদ সম্মেলনে খালেদাকে ‍মুক্তির সিদ্ধান্তের কথা জানান। মন্ত্রী বলেছেন, দুটি শর্তে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে। সেগুলো হলো, এই সময়ে তার ঢাকায় নিজের বাসায় থাকতে হবে এবং তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না।
দণ্ড স্থগিতের প্রস্তাব গতকাল বিকেলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আদেশে প্রধানমন্ত্রী স্বাক্ষর করলে তা কারাগারে পাঠানো হবে। তারপরই বেগম জিয়া মুক্তি পাবেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ড নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি খালেদা জিয়া। তাকে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে বিশেষ কারাগার স্থাপন করে সেখানে রাখা হয়। গত বছরের এপ্রিল থেকে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন।